প্রকল্পের কাজ দ্রুত শেষ করার নির্দেশ এসজেডিএ চেয়ারম্যানের

266

নাগরাকাটা: এসজেডিএ-র উন্নয়নমূলক কাজের প্রকল্পগুলি দ্রুত শেষ করার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে বলে চেয়ারম্যান বিজয় চন্দ্র বর্মন জানান। ডুয়ার্সের একাধিক প্রকল্পের কাজের পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতে দপ্তরের শীর্ষ আধিকারিক ও বাস্তুকারদের নিয়ে তিনি নিজেই শুক্রবার আসেন। প্রথমে তাঁরা নাগরাকাটার একলব্য মডেল আবাসিক স্কুলে নির্মীয়মান একটি অত্যাধুনিক অডিটোরিয়ামের কাজের অগ্রগতি খতিয়ে দেখেন। এরপর তাঁর নেতৃত্বে এসজেডিএ-র দলটি চলে যায় লাটাগুড়ির ইকো-পার্ক ও হাট শেডের নির্মীয়মান কাজ দেখতে। বিজয় বাবু বলেন, করোনা পরিস্থিতি ও বর্ষার কারণে কাজগুলির অগ্রগতি কিছুটা পিছিয়ে আছে। দ্রুততার সঙ্গে সমস্ত প্রকল্পের কাজ শেষ করে ফেলা হয় সেই নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। প্রতিটি কাজের সময়সীমা বেঁধে দেওয়া আছে।

এসজেডিএ সূত্রে খবর, এই মূহুর্তে তাঁদের মাধ্যমে নানা এলাকায় ৫০ টিরও বেশি বড় মাপের প্রকল্পের কাজ চলছে। এদিন যে ৩ টি কাজ চেয়ারম্যান খতিয়ে দেখেন সেগুলির মধ্যে একলব্য মডেল স্কুলের অডিটোরিয়াম টি ২ কোটি ৮০ লক্ষ, লাটাগুড়ির হাট শেড ৮ কোটি ও সেখানকার ইকোপার্কটি ৭ কোটি টাকা ব্যয় বরাদ্দের। একলব্যর অডিটোরিয়ামে ৫০০ টি আসন থাকবে। যে কোনও ধরনের অনুষ্ঠানের জন্য সেখানে থাকছে মঞ্চও। এর আগে এসজেডিএ-র পক্ষ থেকেই ওই স্কুলের দ্বিতল ভবনের কাজ শেষ হয়েছে। সেটাও বিজয় চন্দ্র রায় পরিদর্শন করেন। এদিন তাঁদের অনগ্রসর সম্প্রদায় কল্যাণ দপ্তর পরিচালিত ওই স্কুলটিকে ঘুরিয়ে দেখান সেখানকার অধ্যক্ষ মেজর অমরজিত্ সিং চৌহান। চেয়ারম্যানের সঙ্গে পরিদর্শক দলটিতে অন্যান্যদের মধ্যে ছিলেন এসজেডিএ-র চিফ এক্সিকিউটিভ অফিসার প্রিয়াঙ্কা সিমলা, অতিরিক্ত মুখ্য বাস্তুকার সুদীপ সেনগুপ্ত, সুপারইন্টেন্ড বাস্তুকার সমর সরকার, এক্সিকিউটিভ ইঞ্জিনিয়ার গৌতম মজুমদার প্রমুখ।

- Advertisement -