জলের পাইপে মুখ গুঁজে শ্বাসরোধ করে মাকে খুনের অভিযোগে গ্রেপ্তার ছেলে

64

বর্ধমান: বাড়ির সাবমার্সিবেলের জলবাহিত পাইপে মুখে গুঁজে শ্বাসরোধ করে নিজের বৃদ্ধা মাকে খুন করার অভিযোগে গ্রেপ্তার হল ছেলে। ঘটনাটি ঘটেছে পূর্ব বর্ধমানের নাদনঘাট থানার চাঁপাহাটি গ্রামে। পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, ধৃতের নাম কার্তিক ঘোষ। মৃত বৃদ্ধার নাম লক্ষী ঘোষ(৭০)। নাদনঘাটের চাঁপাহাটি গ্রামের বাসিন্দা। নাদনঘাট থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে দেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য সোমবার বর্ধমান হাসপাতাল পুলিশ মর্গে পাঠিয়েছে। পাশাপাশি, অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করে থানায় নিয়ে যায় পুলিশ।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, কার্তিক পেশায় গ্যারেজ মিস্ত্রি। রবিবার দুপুর সাড়ে ৩টে নাগাদ কার্তিক বাড়ি ফেরে। দেরিতে বাড়ি ফেরার কারণ জানতে চায় তাঁর বৃদ্ধা মা, স্ত্রী ও ছেলে মেয়ে। অভিযোগ, তখনই কার্তিক গালিগালাজ করার পাশাপাশি পরিবারের সবাইকে মারধোর করতে শুরু করে। ভয়ে কার্তিকের স্ত্রী তাঁর ছেলে ও মেয়েকে নিয়ে বাড়ি ছেড়ে পালিয়ে যায়। শুধু পালাতে পারেন নি বৃদ্ধা মা লক্ষীদেবী। সেসময় বাড়ির সাবমার্সিবেল পাম্প চালিয়ে জলবাহিত পাইপ লাইনে নিজের মায়ের মুখে গুঁজে ধরে ছেলে। যার জেরে দমবন্ধ হয়ে বৃদ্ধা মারা যান।

- Advertisement -

প্রতিবেশীরা পুলিশকে জানান, কার্তিক অত্যন্ত উশৃংখল ছেলে। নেশা করে বাড়ি ফিরে প্রায়ই সে বাড়িতে অশান্তি করত। বাড়ির লোকজনকে মারধোর করত। রবিবার নিজের মাকেই সে প্রাণে মারে। মাকে খুন করার কথা কবুল করার পরই খুনের মামলা রুজু করে নাদনঘাট থানার পুলিশ ধৃতকে গ্রেপ্তার করে কালনা মহকুমা আদালতে পেশ করে। তদন্তকারী অফিসার ধৃতকে নিজেদের হেপাজত চেয়ে আদালতে আবেদন জানান। বিচারক ধৃতকে চারদিনের পুলিশ হেপাজতে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন। অভিযুক্তের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করেছেন মৃতার পরিজন ও এলাকাবাসী।