প্রকাশ্য যাত্রা, বিচিত্রানুষ্ঠানে ছাড় দিল রাজ্য সরকার

162

কলকাতা: ‘নিউ নর্মাল’-এ সিনেমা হলের পর এবার মেলা, বিচিত্রানুষ্ঠান ও যাত্রামঞ্চের দরজা খুলে গেল। শিল্পীদের রুজিরুটির কথা মাথায় রেখে রাজ্য সরকার প্রকাশ্য অনুষ্ঠান করার ছাড়পত্র দিল।

শনিবার নবান্নে মুখ্যসচিব আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায় জানান, ‘এবার যাত্রাশিল্পী, লোকশিল্পী সঙ্গীতশিল্পী, আবৃত্তিশিল্পীদের জীবন-জীবিকার প্রশ্নে সহযোগিতা করবে রাজ্য সরকার। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও সেটাই চান।’ অর্থাৎ মেলা, এক্সপো, বিচিত্রানুষ্ঠান, যাত্রা করার ক্ষেত্রে আর কোনও বাধা রইল না। তবে মানতে হবে কোভিড প্রোটোকল। প্রেক্ষাগৃহে অর্ধেক দর্শক সংখ্যা অথবা সর্বোচ্চ ২০০ জনের উপস্থিতিতে অনুষ্ঠান করা যাবে। খোলা প্যান্ডেলে কোনও ঊর্ধ্বসীমা থাকছে না।

- Advertisement -

এদিকে, করোনা আবহে হল খোলার পরে কম দর্শক। ক্ষতির ধাক্কা সামলাতে না পেরেই সিঙ্গল স্ক্রিন বন্ধ। জয়া, প্রাচী,মেনোকা, ইন্দিরা, অশোকা, প্রিয়া, ডাকবাংলো( বারাসাত), বায়োস্কোপ (দূর্গাপুর)- এর মতো সিঙ্গেল স্ক্রিনগুলি চালানোর খরচটুকু পর্যন্ত উঠে আসছে না। তাই বাধ্য হয়েই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া বলেই জানাচ্ছেন বেশিরভাগ সিনেমা হলের মালিক।

করোনা পরিস্থিতিতে দীর্ঘদিন সিনেমা হল বন্ধ থাকার পর গত ১৫ অক্টোবর রাজ্যের সমস্ত সিনেমা হল গুলি খুলে দেওয়ার নির্দেশিকা জারি করে রাজ্য সরকার। তবে এক্ষেত্রে স্বাস্থ্যবিধি মানতে হবে তা স্পষ্ট জানিয়ে দেওয়া হয়। কিন্তু স্বাস্থ্যবিধি মানতে গেলে বিপুল পরিমাণে খরচ বহন করতে হচ্ছিল সিনেমা হল কর্তৃপক্ষদের। মাল্টিপ্লেক্সগুলি এই ব্যয় বহন করতে সক্ষম হলেও চাপ বাড়ছিল সিঙ্গেল স্ক্রিন মালিকদের ওপর।