গ্রিন জোনে বাস চালাতে দ্বিগুণ ভাড়ার প্রস্তাব রাজ্য সরকারের

402
প্রতীকী ছবি।

স্বরূপ বিশ্বাস, কলকাতা: গ্রিন জোনে বাস চালাতে বাস মালিকদের সঙ্গে সরকারি আধিকারিকদের গুরুত্বপূর্ণ বৈঠক হয়েছে। দ্বিগুণ বাস ভাড়া নিয়ে শুক্রবার থেকে কুড়ি জন যাত্রী নিয়ে বেসরকারি বাস গ্রিন জোনে চালানোর প্রস্তাব দিয়েছে রাজ্য সরকার। বৃহস্পতিবার এই নয়া প্রস্তাব নিয়ে বেসরকারি বাস মালিকদের সঙ্গে বৈঠকে বসছেন জেলাশাসক ও আরটিওরা। বুধবার রাজ্য পরিবহণ দপ্তর সূত্রে খবর, বেসরকারি বাস মালিকদের রাজি করাতেই নতুন এই প্রস্তাব দেওয়া হচ্ছে। সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে কুড়ি জন যাত্রী নিয়ে বাস চালাতে পরিবহন দপ্তরের প্রস্তাবে রাজি হয় কিনা সেটাই দেখার।

বুধবার রাজ্য পরিবহন দপ্তরের অধিকর্তা বিশ্বজিৎ দত্ত বলেন, বেসরকারি বাস গ্রিন জোনে চালাতে নতুন পরিকল্পনা নেওয়া হচ্ছে। তার একটা রূপরেখা তৈরি করা হয়েছে। গ্রিন জোনের জেলাগুলির জেলাশাসক ও আরটিওরা বেসরকারি বাস মালিকদের সঙ্গে বৃহস্পতিবার আলোচনা করবেন। আশা করা যায় শুক্রবার থেকে গ্রিন জোনের জেলাগুলিতে বেসরকারি বাস চলবে। শুধু বেসরকারি নয়, ওইসব জেলায় যাত্রীদের জন্য সরকারি বাসও চলতে পারে। বেসরকারি বাস মালিকদের কি প্রস্তাব দেওয়া হবে সেটা অবশ্য জানাতে চাননি বিশ্বজিৎবাবু। নবান্নের খবর বেসরকারি বাস রাস্তায় নামাতে চাপ রয়েছে রাজ্য প্রশাসনের তরফে। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও চাইছেন আবার বাস চলাচল শুরু হোক। ধীরে ধীরে জনজীবন স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরিয়ে আনা দরকার পরিবহন দপ্তরকে এ ব্যাপারে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য নির্দেশ দিয়েছেন তিনি। এদিকে পরিবহন দপ্তর এখন যেভাবে হোক মালিকদের রাজি করানোর চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।

- Advertisement -

কুড়ি জন যাত্রী নিয়ে বাস চালাতে হলে প্রচন্ড আর্থিক ক্ষতির মুখোমুখি হতে হবে বাস মালিকদের। প্রথম থেকেই সে কথা সরকারকে জানিয়ে আসছেন তাঁরা। তাদের এই অবস্থান থেকে সরিয়ে আনতে পরিবহন দপ্তর দ্বিগুণ ভাড়া নেওয়ার প্রস্তাব বেসরকারি বাস মালিকদের দিতে চলেছে। এব্যাপারে বেসরকারি বাস মালিকদের বুঝিয়ে-সুজিয়ে রাজি করানোর দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে জেলাশাসক ও আরটিওদের। যদিও বেসরকারি বাস মালিক সংগঠনগুলির মতে সরকারের এই দ্বিগুণ ভাড়া কতটা কাজে দেযবে তা নিয়ে যথেষ্ট সন্দেহের অবকাশ রয়েছে। বেসরকারি বাস মালিকদের প্রশ্ন, কুড়ি জন যাত্রীর কাছে দ্বিগুণ ভাড়া আদায় করেও কি আর্থিক ক্ষতি সামাল দেওয়া সম্ভব হবে? সর্বোপরি যাত্রীরা কি দ্বিগুণ ভাড়া দিতে সম্মত হবেন? যদি তা না হয় তবে চলতি মাসে বাস চালানোর সম্ভাবনা কম।