কেন্দ্রের এক জাতি এক র‍্যাশন কার্ডের নীতি মানবে না রাজ্য সরকার

1529

স্বরুপ বিশ্বাস, কলকাতা: এক জাতি এক র‍্যাশন কার্ডের নীতি মানবে না রাজ্য সরকার। ‘রাজ্যের দেওয়া র‍্যাশন কার্ডই চলবে রাজ্য। এই নিয়ে কেন্দ্র যা বলার বলতেই পারে। রাজ্য তা মানবে না।’ বৃহস্পতিবার রাজ্যের খাদ্যমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক সাফ জানিয়ে দিলেন রাজ্য সরকারের এই মনোভাবের কথা। এ দিন দিল্লিতে কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সিতারমন জানিয়েছেন, যারা দেশের জন্য একই ধরনের র‍্যাশন কার্ড চালু করছে কেন্দ্র। দেশের ২৩টি রাজ্যের প্রায় ৬৭ কোটি মানুষ এতে উপকৃত হবেন। এরমধ্যে ৮৩ শতাংশ এই এক জাতি এক রাশ্যন কার্ডের গ্রাহকরা দেশের যে কোনও জায়গায় তাঁদের র‍্যাশন তুলতে পারবেন।

কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রীর এই বক্তব্যের পর খাদ্যমন্ত্রী দাবি করেন, ‘আমরা চাষিদের কাছ থেকে ধান কিনে চাল তৈরি করিয়ে তা র‍্যাশনে সরবরাহ করি। এতে রাজ্যবাসীর পাশাপাশি চাষিরাও উপকৃত হবেন। শুধু চাষিরা বললে ভুল হবে। তাঁদের সঙ্গে উপকৃত হবেন চটকল শ্রমিকরাও। চালের ক্ষেত্রে চটের ব্যাগের দরকার হয়। যা আমরা চটকল থেকে কিনি। র‍্যাশনের যা অত্যন্ত প্রয়োজন। চাষিরা অভাবি বিক্রি থেকে বাঁচবেন। সরকারের কাছে তাঁরা সহায়ক মূল্যে ধান বিক্রি করতে পারেন।’ এইসবের জন্য রাজ্যের র‍্যাশন ব্যবস্থা জনমুখী। কেন্দ্র অনেকদিন আগে থেকে এই এক জাতি এক রেশন কার্ড তৈরির কথা বলছে। আমরা আগেই এর বিরোধিতা করে কেন্দ্রকে জানিয়ে দিয়েছি দরকার হলে আবার তা কেন্দ্রকে জানিয়ে দেওয়া হবে। পরিযায়ী শ্রমিকদের বিনামূল্যে ‘দুমাস র‍্যাশন দেওয়া হবে বলে কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী এদিন ঘোষণা করেছেন তা নিয়ে কোনো মন্তব্য করতে চাননি খাদ্যমন্ত্রী। তিনি জানান, ‘এ ব্যাপারে যা বলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছেন, তাছাড়া এটা শ্রমদপ্তর এর বিষয়।’

- Advertisement -