গঙ্গারামপুর, ৮ ডিসেম্বরঃ হারিয়ে যাওয়া কিংবা চুরি যাওয়া কোন জিনিস প্রায়শই সাধারণ নাগরিকদের পুলিশি সাহায্যে খুঁজে বের করতে জুতোর শুকতলা খোয়াতে হয়। দিনের পর দিন, সাধারণ মানুষদের হন্যে হয়ে থানায় ঘুরতে হয়। সম্প্রতি ব্যতিক্রমী চিত্র দেখা গেল গঙ্গারামপুর থানায়। গত কয়েক মাসে গঙ্গারামপুর থানা এলাকায় চুরি যাওয়া ল্যাপটপ, নগদ টাকা, মোবাইল ফোন, সোনার গহনা, দুটি টোটো সহ অন্যান্য সামগ্রী উদ্ধার করছে পুলিশ। রবিবার বিকেলে চুরি যাওয়া বিভিন্ন দ্রব্য তুলে দেওয়া হল গঙ্গারামপুর থানা এলাকার ব্যক্তিদের হাতে। পুলিশ প্রশাসনের এমন উদ্যোগে স্বভাবতই খুশি থানা এলাকার বাসিন্দারা।
গত ২১ নভেম্বর পশ্চিমবঙ্গ সরকারের প্রাক্তন মন্ত্রী তথা সিপিএমের জেলা সম্পাদক নারায়ন বিশ্বাসের বাড়িতে চুরির ঘটনা ঘটে ।চুরির ঘটনার খবর পাওয়ার পরই দ্রুত চুরি যাওয়া ল্যাপটপ উদ্ধার করে গঙ্গারামপুর থানা পুলিশ। এদিন হারিয়ে যাওয়ার ল্যাপটপ পাওয়ার পর প্রাক্তন মন্ত্রীর ছেলে অরূপ বিশ্বাস বলেন, ‘সাধারণত কোন কিছু হারিয়ে গেলে, পুলিশ প্রশাসনের কাছে অভিযোগ দায়ের করার পর সেভাবে সুরাহা মেলে না। তবে গঙ্গারামপুর থানার পুলিশ প্রশাসন যেভাবে তৎপরতার সঙ্গে হারিয়ে যাওয়া জিনিস খুঁজে বের করে আজ হাতে তুলে দিল, তাতে আমি খুশি’।হারিয়ে যাওয়া টোটো ফেরত পাওয়ার পর গঙ্গারামপুর থানার বাসিন্দা জাহাঙ্গীর হোসেন বলেন, ‘সম্প্রতি কালীপুজোর সময় আমার উপার্জনের একমাত্র সম্বল টোটো হারিয়ে যায়। এরপর গঙ্গারামপুর থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়। চুরি যাওয়া টোটো উদ্ধার করে গঙ্গারামপুর থানার পুলিশ আজ আমার হাতে তুলে দেয়। এতে আমি ভীষণ খুশি’।এ প্রসঙ্গে গঙ্গারামপুর থানার আইসি পূর্ণেন্দু কুন্ডু জানান, সাধারণ মানুষের পুলিশ এবং আইন ব্যবস্থার উপরে যাতে আস্থা এবং বিশ্বাস অটুট থাকে, তার জন্যই সদা তৎপর থাকে পুলিশ। তিনি বলেন, ‘গঙ্গারামপুর থানা এলাকায় যে কোন চুরি বা অপরাধমূলক ঘটনা ঘটলে আমরা দ্রুত তার সমাধান করবার চেষ্টা করি। সেরকমই গঙ্গারামপুর থানা এলাকায় চুরি যাওয়া ল্যাপটপ, সোনার গহনা, নগদ টাকা, মোবাইল এবং দুটি টোটো  উদ্ধার করে আজ তাদের মালিকদের হাতে তুলে দেওয়া হল’।