মাথাভাঙ্গা মাছ ও মাংসের বাজার কমপ্লেক্সে তালা ঝোলালেন মহকুমাশাসক

711

মাথাভাঙ্গা: মাথাভাঙ্গা জংলি কালীবাড়ি সংলগ্ন পুরসভার নবনির্মিত অস্থায়ী মাছ ও মাংসের বাজার শেডে মাছ ও মাংসের বাজার স্থানান্তরিত না হওয়ায় সোমবার মাথাভাঙ্গা মাছ ও মাংসের বাজার কমপ্লেক্সের গেটে তালা ঝোলালেন মাথাভাঙ্গা মহকুমা শাসক জিতিন যাদব। মহকুমা শাসক জানান, করোনা সংক্রমণ রোধে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার লক্ষ্যে পুরসভা প্রচুর অর্থ ব্যয় করে অস্থায়ী মাছ ও মাংসের শেড তৈরি করেছে। অথচ সেখানে মাছ ও মাংসের বাজার স্থানান্তরিত না করে মূল বাজারে বিকিকিনি চলছিল এবং তাতে সামাজিক দূরত্ব বিঘ্নিত হওয়ায় সংক্রমণের আশঙ্কা বাড়ছিল।

তিনি বলেন, প্রশাসনের পক্ষ থেকে মাছ ও মাংস ব্যবসায়ীদের মাছ ও মাংসের বাজার অস্থায়ী শেডে স্থানান্তরিত করার নির্দেশ দেওয়া হলেও সেই নির্দেশ না মানায় সোমবার সেখানে তালা ঝুলিয়ে দেওয়া হয়েছে। মহকুমা শাসক বলেন, বিষয়টি নিয়ে আলোচনার জন্য ব্যবসায়ীদের আহ্বান করা হলেও তাঁরা বিষয়টিকে গুরুত্ব দেয়নি। মহকুমা শাসক জানান, মঙ্গলবার থেকে পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত অস্থায়ী মাছ ও মাংসের বাজারে কেনাবেচা চলবে।

- Advertisement -

এদিকে অস্থায়ী মাছ ও মাংসের বাজারে ব্যবসা করার মত পরিকাঠামো নেই বলে অভিযোগ মাছ-মাংস ব্যবসায়ীদের। পাশাপাশি সোমবার তাঁদের সঙ্গে আলোচনা না করে তালা ঝোলানোর ঘটনায় অসন্তুষ্ট ব্যবসায়ীরা। এদিন বিকেলে ছাট খাটেরবাড়ি দুর্গা মন্দির প্রাঙ্গণে বিষয়টি নিয়ে আলোচনায় বসেন মাছ ও মাংস ব্যবসায়ীরা। নির্মলা কলোনি মৎস্যজীবী সমবায় সমিতির সম্পাদক অনিল দাস বলেন, ব্যবসায়ীদের না জানিয়ে মার্কেট কমপ্লেক্স তালা ঝোলানোর ঘটনায় ব্যবসায়ীরা অসন্তুষ্ট।

তবে মহকুমা শাসকের আহ্বানে আলোচনার জন্য ব্যবসায়ীদের যাওয়া উচিত ছিল বলেও মন্তব্য করেন অনিল দাস। তিনি বলেন, এদিনের আলোচনায় কোনও সিদ্ধান্ত হয়নি। মঙ্গলবার সকালে বিষয়টি নিয়ে ফের আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। মাথাভাঙ্গা ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি সঞ্জীব পোদ্দার জানান, মাথাভাঙ্গা মাছ ও মাংসের বাজার কমপ্লেক্সে প্রশাসনের পক্ষ থেকে তালা ঝোলানোর বিষয়টি তাঁর জানা নেই। তবে খোঁজ নিয়ে দেখবেন।