করোনা নিয়ে মানুষকে সচেতন করতে স্বাস্থ্যদপ্তরের তরফে শুরু সমীক্ষা

122

লাটাগুড়ি: জ্বর হলেও স্বাস্থ্যকেন্দ্রে গিয়ে চিকিৎসকদের পরামর্শ নিচ্ছেন না বহু রোগী। অনেকেই নিজের জ্বর লুকিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করছেন। আবার অনেকে খুব বেশি হলে বাজার বা পাড়ার ওষুধের দোকান থেকে ওষুধ কিনে জ্বর সাড়াবার চেষ্টাও করছেন। যার ফলে গত চার দিনে চার জনের মৃত্যু নিয়ে আতঙ্ক ছড়িয়েছে লাটাগুড়িতে।

লাটাগুড়ি গ্রাম পঞ্চায়েতের অনেকে করোনার লক্ষণ লুকিয়ে বাড়িতে রয়েছেন এই খবর স্বাস্থ্যদপ্তরের কাছে যায়। তাই মানুষকে সচেতন করতে বুধবার গ্রাম পঞ্চায়েত ও স্বাস্থ্যদপ্তরের তরফে টিম তৈরি করে গোটা গ্রাম পঞ্চায়েতে সার্ভে শুরু হল। সার্ভেতে জ্বর লুকিয়ে বাড়িতে থাকা বেশ কয়েকজনের করোনা টেস্ট করা হলে রিপোর্ট পজিটিভ আসে।

- Advertisement -

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, গত ২ মে লাটাগুড়ি বাজারে করোনা আক্রান্ত এক যুবকের মৃত্যু হয় বাড়িতেই। ৩ মে গ্রাম পঞ্চায়েতের ঝাড় মাটিয়ালির এক ব্যক্তির মৃত্যু হয়। ওই ব্যক্তির মৃত্যুর কারণ জানা না গেলেও মৃত ব্যক্তির এক ছেলে করোনা আক্রান্ত হয়ে মেটেলির সেফ হোমে ভর্তি রয়েছে। ৪ তারিখ গ্রাম পঞ্চায়েতে দু’জনের মৃত্যু হয়েছে। তবে তাদের মৃত্যুর কারণ এখনও স্পষ্ট নয়।

ক্রান্তির বিডিও প্রবীর সিনহা জানান, যেকোনও ধরণের উপসর্গ দেখা দিলে চিকিৎসকদের পরামর্শ নেওয়ার আবেদন জানানো হয়েছে। সংক্রমণ ঠেকাতে বুধবার থেকে শুক্রবার পর্যন্ত কঠোর লকডাউন শুরু হয়েছে লাটাগুড়ি গ্রাম পঞ্চায়েতে। চলছে প্রশাসনের জোর প্রচার। স্থানীয় গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান জগবন্ধু সেন জানান, মানুষকে সচেতন করার জন্য সব রকমের চেষ্টা চলছে। পাশাপাশি, সংক্রমণ ঠেকাতে তিন দিনের লকডাউন চলছে লাটাগুড়িতে।