ফের অশান্তি, পুলিশের দ্বারস্থ বাগান শ্রমিকেরা 

90

বীরপাড়া: কিছুতেই যেন জটিলতা কাটছে না। পাতা চুরি ইস্যুতে ফের নতুন করে সমস্যা দেখা দিল আলিপুরদুয়ার জেলার বীরপাড়া চা বাগানে। সমস্যা সমাধানে পুলিশের দ্বারস্থ হলেন বাগানের এনজি এবং ওজি ডিভিশনের শ্রমিকেরা। সমস্যা সমাধানে বৃহস্পতিবার পুলিশকে নির্দিষ্ট সময় বেঁধে দিয়ে পাতা চুরি কাণ্ডে যুক্তদের গ্রেপ্তারের দাবি জানানো হয়।

প্রসঙ্গত, ডানকানের ওই চা বাগানটি গত ১৬ ফেব্রুয়ারি মেরিকো টি কোম্পানির হাত ধরে নতুনভাবে পথ চলা শুরু করে। এরপরেই শুরু নয়া সমস্যা। গত ১৫ মার্চ তাদের বিরুদ্ধে মালিকপক্ষ চা বাগানের পাতা চুরির অভিযোগ দায়ের করে বীরপাড়া থানায়। এরপর বীরপাড়া থানার পুলিশ পাতা তোলা বন্ধ করে দিলে ১৬ মার্চ প্রায় ২৫০০ কেজি কাঁচা চা পাতা বীরপাড়া থানার সামনে ফেলে বিক্ষোভ দেখান জটেশ্বর ডিভিশনের শ্রমিকেরা। তাদের বক্তব্য, মেরিকো টি কোম্পানি বীরপাড়া চা বাগানটির দায়িত্ব নেওয়ার কোনও কাগজপত্র দেখাতে পারছে না। তাই নয়া কোম্পানির ওপর তাদের কোনো ভরসা নেই। বরং চা বাগানের ভবিষ্যত নিয়ে অনিশ্চয়তায় ভুগছেন তাঁরা।

- Advertisement -

বীরপাড়া চা বাগানটি মেরিকো টি কোম্পানির হাতে তুলে দেওয়া নিয়ে প্রথম থেকেই আপত্তি জানিয়ে আসছেন ওই চা বাগানের জটেশ্বর ডিভিশনের শ্রমিক কর্মচারিরা। এমনকি চা বাগান খুলে যাওয়ার পরও ওই ডিভিশনের শ্রমিক কর্মচারিরা কাজে যোগ না দিয়ে কাঁচা পাতা বিক্রি করে যাচ্ছিলেন। এদিন ফের চা পাতা তোলা বন্ধ করতে জটেশ্বর ডিভিশনে যায় পুলিশ বাহিনী। ফলে নতুন করে উত্তেজনা ছড়ায় এলাকায়।

চা বাগান তৃণমূল কংগ্রেস মজদুর ইউনিয়নের সহসভাপতি মান্নালাল জৈন, ‘বাগান খোলার পরও কিছু লোকজন বেআইনিভাবে চা পাতা তুলে বিক্রি করে চলেছে। এটা চুরি ছাড়া আর কিছুই নয়। এধরনের  প্রবণতা বন্ধ করা না হলে অন্যান্য চা বাগানেও তা ছড়িয়ে পড়বে। পুলিশকে ১ এপ্রিল পর্যন্ত সময় দেওয়া হয়েছে। এর মধ্যে চা পাতা বিক্রির পান্ডাদের গ্রেপ্তার না করা হলে ২ এপ্রিল থেকে বীরপাড়া থানা চত্বরেই অনির্দিষ্টকালের জন্য ধর্ণায় বসবেন শ্রমিকরা। তার দায় নিতে হবে পুলিশকেই।’

বীরপাড়া থানা সূত্রে জানানো হয়েছে, চা পাতা চুরির অভিযোগে বুধবার এক ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।