একমাস ধরে রায়গঞ্জ মেডিকেল কলেজের থ্যালাসেমিয়া ইউনিট বন্ধ, বিপাকে রোগীরা

211

রায়গঞ্জ ১৮ জানুয়ারিঃ একমাস ধরে রায়গঞ্জ মেডিকেল কলেজের থ্যালাসেমিয়া ইউনিট বন্ধ থাকায় বিপাকে পড়েছে দূর-দূরান্ত থেকে আসা রোগীরা। থ্যালাসেমিয়া ইউনিটের ঘরের সামনে তালা বন্দি অবস্থায় একটি কাগজ সাঁটিয়ে দেওয়া হয়েছে যার মধ্যে লেখা রয়েছে মেশিন খারাপের জন্য থ্যালাসেমিয়া টেস্ট অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ রয়েছে। বছর খানেক আগে রায়গঞ্জ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে থ্যালাসেমিয়া কন্ট্রোল ইউনিট খোলা হয়েছে। ১০ শয্যা বিশিষ্ট ইউনিটের জন্য বছর দুয়েক আগে স্বাস্থ্য ভবন থেকে ৪০ লক্ষ টাকা বরাদ্দ করা হয়েছিল। সেই মোতাবেক তৈরিও হয়। এই ইউনিট খোলার পর থেকে থ্যালাসেমিয়া নির্ণয় থেকে নিরাময় সবকিছুই হচ্ছিল ইউনিটে। মাসখানেক আগে একাধিক যন্ত্র খারাপ হয়ে যাওয়ায় যাবতীয় সমস্যার সূত্রপাত। এই ইউনিট বন্ধ থাকার ফলে থ্যালাসেমিয়া রোগী ও তার পরিবারের লোকজনদের কাউন্সিলিংও হচ্ছে না। এছাড়া রোগীদের ভর্তি করে রক্ত দেওয়া রোগ নির্ণয় সচেতনতা তৈরি সব কাজ বন্ধ রয়েছে। এক কথায় থ্যালাসেমিয়ার একটি পূর্ণাঙ্গ ইউনিট বন্ধ রয়েছে। রায়গঞ্জ মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ দিলীপ কুমার পাল বলেন, ‘রাজ্য স্বাস্থ্য ভবনকে এই বিষয়ে জানানো হয়েছে যত দ্রুত সম্ভব বিকল যন্ত্রাংশের মেরামতের পাশাপাশি নতুন যন্ত্রাংশ বসানো হবে শিঘ্রই’। রায়গঞ্জ নাগরিক কমিটির সম্পাদক তপন চৌধুরী বলেন, ‘দীর্ঘদিন ধরে এই ইউনিটটি বন্ধ রয়েছে। দ্রুত খোলার জন্য রায়গঞ্জ মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষকে বলা হয়েছে। দ্রুত এই কাজটি সম্পুর্ন না হলে বৃহত্তর আন্দোলনের নামা হবে।