সংস্কারের দাবিতে রাস্তাতেই ধান গাছ রোপণ গ্রামবাসীর

127

রায়গঞ্জ: রাস্তা সংস্কারের দাবিতে পথ অবরোধ করে রাস্তাতেই ধান গাছ রোপণ করলেন গ্রামবাসীরা। শুক্রবার রায়গঞ্জ ব্লকের ১২ নম্বর বড়ুয়া অঞ্চলের সিজগ্রাম – ভরতপুর এবং রাড়িয়া – ভাগডুমুর সংসদের ভাগডুমুর এলাকার ঘটনা।

এলাকাবাসীর অভিযোগ, স্থানীয়রা প্রশাসন থেকে শুরু জনপ্রতিনিধিদের দ্বারস্থ হলেও প্রতিশ্রুতি ছাড়া কিছুই মেলেনি। ফলে, ফি বছর বর্ষাতে অল্প বৃষ্টিতেই চরম ভোগান্তির মধ্যে পড়তে হয়। বাধ্য হয়ে, এদিন বাঁশ দিয়ে রাস্তা অবরোধ রাস্তাতেই ধান গাছ রোপণ করা হয়। সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত অবরোধ চলার পরে বিকালে স্থানীয় পঞ্চায়েত অফিস ঘেরাও করেন। অবরোধের খবর পেয়ে গ্রাম পঞ্চায়েত সদস্য তুতন বর্মন অবরোধ তোলার আবেদন করেন। কিন্তু, এলাকাবাসী আবেদনে সাড়া দেননি। পরে পঞ্চায়েত প্রধানকে ঘেরাও করা হয়।
স্থানীয় সূত্রে খবর, ভরতপুর, রাড়িয়া, ভাগডুমুর, বাজিতপুর, সিজগ্রাম সহ এলাকার প্রায় ৬ হাজার বাসিন্দা এই রাস্তা দিয়ে যাতায়াত করেন। এই রাস্তা দিয়েই স্থানীয় বিএড কলেজ, নার্সারি স্কুল, কমলাবাড়ি, দূর্গাপুর হাটে যাতায়াত করেন।

- Advertisement -

গ্রামবাসী সুকান্ত সরকার, রনি প্রামাণিক, জয়ন্ত সরকার,অমরেশ সরকারদের অভিযোগ , গ্রামবাসীদের দুর্দশার কথা সরকার ভাবে না। দীর্ঘদিন ধরে সমস্যার কথা জানালেও কেউ গুরুত্বই দিচ্ছে না। এদিকে বৃষ্টি হলেই কাদাজলে ভরে যায় এলাকা।

গ্রাম পঞ্চায়েত সদস্য তুতন বর্মন বলেন, গ্রামবাসীরা বাধ্য হয়ে আন্দোলনে নেমেছে। কারণ, রাস্তা দিয়ে চলাচল করা যাচ্ছে না। এনআরইজিএস প্রকল্পে দুইবার দরপত্র আহ্বানের পরও কেন তা বাতিল হয়ে গেল জানি না। এখন শুনছি জেলা করবে। পঞ্চায়েত বা জেলা যে দপ্তরই করুক না কেন আমরা রাস্তা চাই। তিনি আরও বলেন, রাজনৈতিক কারণে বঞ্চিত করা কিনা বুঝতে পারছি না।

গ্রাম পঞ্চায়েত প্রধান ধনেশ্বর বর্মন বলেন, রাস্তার জন্য দীর্ঘদিন ধরে দাবি জানিয়ে আসছেন গ্রামবাসীরা। গ্রামবাসীদের দাবি মেনে, এক কিমি রাস্তার জন্য দরপত্র আহ্বান করা হয়। এর জন্য ২৪ লক্ষ ৬০ হাজার টাকা বরাদ্দও করা হয়। কিন্ত জেলা থেকে নির্দেশ এসেছে এনআরইজিএস প্রকল্পে এই কাজ করা যাবে না। বেশি বাজেটের রাস্তার কাজ জেলা করবে। তাই দরপত্রের আহ্বানের পরেও তা বাতিল করা হয়। তবে, নতুন করে দরপত্র আহ্বানের কাজ শুরু করতে ব্লক ও জেলা প্রশাসনের সঙ্গে কথা বলা হবে।