ভোট আসে, ভোট যায়, কাজের নিশ্চয়তা মেলে না দিন মজুরদের

98

রায়গঞ্জ: ভোট আসছে প্রতিশ্রুতি মিলছে। ভোট যাচ্ছে প্রতিশ্রুতি চাপা পড়ে যাচ্ছে। কিন্তু দিন মজুর মানুষগুলির দিন বদলের স্বপ্নই থেকে যাচ্ছে। অবস্থার কোনও পরিবর্তন ঘটছে না। গ্রামের মানুষগুলির মিলছে না সরকারি সুযোগ সুবিধা। র‍্যাশন থেকে পাচ্ছে না তাদের প্রাপ্য র‍্যাশন সামগ্রী। লকডাউনের সময় থেকে অসহায় অবস্থার মধ্যে আছে রায়গঞ্জের আশপাশের গ্রামের দিন মজুর মানুষগুলি। এক সময়ে পরিযায়ী শ্রমিকের কাজ করলেও লকডাউনের পর আর ভিন রাজ্যে ফিরে যেতে পারেনি। দিন মজুর কাজের জন্য কোদাল ও ঝুড়ি নিয়ে রায়গঞ্জে আসলেও প্রায় দিন কাজ না পেয়ে বাড়ি ফিরে যেতে হয়। সারাদিন কাজ করলে জোটে ৩০০ টাকা। আবার কোনও দিন ২০০ টাকার মজুরিতে কাজ করতে হয়।

রায়গঞ্জ শহরের দেবীনগর কালিবাড়ি, বিদ্রোহী মোড় ও দেহশ্রী মোড়ে সকাল হলেই দেখা যায় বিভিন্ন গ্রাম থেকে দিন মজুর মানুষ গুলি ঝুড়ি ও কোদাল নিয়ে হাজির হন। সকাল ৮টা থেকে ৯টার মধ্যে কাজ না পেলে খালি হাতেই বাড়ি ফিরে যেতে হয়। ইটাহার ব্লকের পাজোলের বাসিন্দা সাইরুল হক বলেন, ‘গত ২০ বছর ধরে ভিন রাজ্যে কাজ করেছি। লকডাউনের সময় বাড়ি ফিরেছি, পরিবার ছেড়ে আর যেতে পারিনি। কিন্তু গ্রামেও কাজ নেই, শহরেও কাজ নেই। প্রায়দিন ঘুরে যেতে হচ্ছে। গ্রাম পঞ্চায়েতের সদস্যরা কোনও সুযোগ সুবিধা দেয় না। র‍্যাশন ডিলাররা প্রাপ্য র‍্যাশন সামগ্রী দিচ্ছে না। তাই ভোট নিয়ে কোনও মাথা ব্যাথা নেই। আমাদের মতো মানুষের লাভের লাভ কিছুই হয় না।’

- Advertisement -

ইটালের বাসিন্দা হীরেন সিং বলেন, ‘প্রতিদিন লেবারের কাজের জন্য শহরে আসি। কিন্তু প্রতিদিন কাজ জোটে না। পঞ্চায়েত থেকে কোনও রকম সাহায্য পাই না। বন্যার সময় বাড়ি ঘর ভেঙে গেলেও পঞ্চায়েত থেকে এক টাকাও পাইনি। ভোট নিয়ে নেতারা মাতামাতি করেন, আমাদের মতো মানুষের কোনও লাভ হয় না।’