গোটা দেশ জওয়ানদের পাশে আছে: মমতা

271
ফাইল ছবি

নয়াদিল্লি: লাদাখের গালওয়ানে চিনা সেনার সঙ্গে সংঘর্ষে ২০ জন ভারতীয় সেনা জওয়ান শহিদ হয়েছেন। জওয়ানদের সুরক্ষায় কেন্দ্রের ভূমিকা নিয়ে ইতিমধ্যেই প্রশ্ন তুলেছে কংগ্রেস। এই পরিস্থিতিতে শুক্রবার বিকেলে  ২০টি রাজনৈতিক দলের শীর্ষ নেতানেত্রীর সঙ্গে ভার্চুয়াল বৈঠক করেন প্রধানমন্ত্রী। চিন ইশ্যুতে তৃণমূল কংগ্রেস, ডিএমকে, আপের মতো বিরোধী দলগুলি প্রধানমন্ত্রীর পাশে দাঁড়িয়েছে।

পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী তথা তৃণমূলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘সর্বদল বৈঠক গোটা দেশের পক্ষে ভালো বার্তা। গোটা দেশ জওয়ানদের পাশে আছে। তৃণমূল কংগ্রেস কেন্দ্রের সঙ্গে আছে। টেলিকম, রেল এবং বিমান পরিষেবায় চিনকে কিছুতেই ঢুকতে দেওয়া উচিত নয়। এতে আমাদের কিছু সমস্যা হবে, কিন্তু আমরা চিনকে কিছুতেই ঢুকতে দিতে চাই না। আমাদের একসঙ্গে কাজ করতে হবে। ভারত জিতবে। চিন হারবে। আমরা ঐক্যবদ্ধ হয়ে কথা বলব, চিন্তা করব, কাজ করব।‘

- Advertisement -

অন্যদিকে, শিবসেনা সুপ্রিমো তথা মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরে, ডিএমকে নেতা এমকে স্ট্যালিনও চিনা আগ্রাসনের প্রতিবাদে কেন্দ্রীয় সরকার যে সিদ্ধান্ত নেবে, তাকে সমর্থন করবে বলে ঘোষণা করেন। সর্বদলীয় বৈঠকে ডাক না পেয়ে গোড়ায় ফোঁস করে উঠলেও শেষমেশ সুর বদলে কেন্দ্রের পাশে থাকার বার্তা দেন দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী তথা আপ সুপ্রিমো অরবিন্দ কেজরিওয়াল। নিজে হাজির না থাকলেও দলীয় প্রতিনিধি পিনাকী মিশ্রের মাধ্যমে সরকারের পাশে থাকার এবং বর্তমান প্রেক্ষাপটে দাঁড়িয়ে রাজনৈতিক দলাদলি না করার বার্তা দিয়েছেন ওডিশার মুখ্যমন্ত্রী তথা বিজেডি সুপ্রিমো নবীন পট্টনায়েকও। আরজেডি অবশ্য বৈঠকে ডাক না পেয়ে অসন্তোষ প্রকাশ করেছে।