বিয়ের জন্য ধর্ণায় বসল যুবক, তারপর কী হল জানুন

186

 হেলাপাকড়ি: ‘প্রমিকাকে না পেলে ফিরব না বাড়ি’, এই দাবি নিয়েই ধর্ণায় বসে মিঠুন রায়। শনিবার বিকেলে এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে চরম উত্তেজনা ছড়ায় পদমতি ২ গ্রামপঞ্চায়েতের অর্জুনের বাড়ি এলাকায়। পরিস্থিতি সামাল দিতে ঘটনাস্থলে আসে বিশাল  পুলিশবাহিনী। স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, নাওয়াপাড়ার বাসিন্দা মিঠুন রায় এবং অর্জুন বাড়ির এলাকার এক যুবতীর মধ্যে এক বছর ধরে প্রেমের সম্পর্ক ছিল। যুবতীর বাড়ি থেকে অন্যত্র বিয়ে ঠিক করা হলে এদিন ধর্ণায় বসে ওই যুবক। আর এবিষয়কে কেন্দ্র করে ভিড় জমে যায় ওই এলাকায়। পরিস্থিতি সামাল দিতে নাজেহাল অবস্থা  হয় পুলিশের।

তবে যুবকের সঙ্গে সম্পর্কের কথা অস্বীকার করেছে যুবতী। তবে যুবতীর বাবার দাবি, তার মেয়ের সঙ্গে ওই যুবকের কোন সম্পর্ক ছিল না। মেয়েও তাকে বিয়ে করতে রাজি নয়। যুবকের বাড়ি থেকে একাধিকবার বিয়ের প্রস্তাব পাঠানো হয়েছিল। কিন্তু সেই প্রস্তাব খারিজ করে অন্যত্র মেয়ের বিয়ে ঠিক করেছেন তিনি। সেকারণে মেয়ের বদনাম ছড়ানোর জন্য চক্রান্ত করা হচ্ছে। পঞ্চায়েত থেকে সমস্যার সমাধান করতে চাওয়া হলেও তা সম্ভব হয়নি। ডিএসপি(ক্রাইম) বিক্রমজিৎ লামা জানান, ‘এক যুবকের ধর্ণায় বসাকে কেন্দ্র করে তুমুল ঝামেলা বেঁধেছিল। জনতাকে ছত্রভঙ্গ করে উভয় পক্ষকে নিয়ে আলোচনা করা হয়। যুবক ও যুবতী উভয় পক্ষের অভিভাবক নিজেদের ছেলে ও মেয়ের দায়িত্ব নিয়েছেন। রাতেই যুবককে তার বাড়িতে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে। এনিয়ে কোনও পক্ষের তরফে অভিযোগ দায়ের হয়নি। তাই আইনি কোন পদক্ষেপ নেওয়া হয়নি।’

- Advertisement -