ক্ষতিপূরণের দাবিতে রাস্তার কাজ আটকে দিলেন জমিদাতারা

410

ক্রান্তি: ক্রান্তি-ওদলাবাড়ি রাজ্য সড়ক সম্প্রসারণের কাজে ফের বাধা। জমিদাতারা ক্ষতিপূরণের দাবিতে বুধবার রাজাডাঙ্গার কাঁঠালগুড়ি মোড় থেকে কাঠামবাড়ি পর্যন্ত প্রায় ৭ কিমি রাস্তার কাজ আটকে দেন। জমির ক্ষতিপূরণের ইস্যুকে সামনে রেখে এদিন কাঁঠালগুড়ি মোড় এলাকায় জমা হন স্থানীয় ভূমিরক্ষা কমিটির সদস্যরা। তাঁরা একটি বৈঠক করেন ও ক্ষতিপূরণের দাবি জানান। যদিও পিডব্লিউডির তরফে জানানো হয়েছে, কৃষকদের কাছ থেকে নতুন করে জমি নেওয়া হচ্ছে না। অযথা কাজে বাধা দেওয়া হচ্ছে।

স্থানীয় জানা গিয়েছে, এলাকায় জমিদাতাদের সংখ্যা দেড় হাজারেরও বেশি। জমিদাতা শেফালি বেগম বলেন, ‘১৯৬৩ সালে আলিপুরদুয়ারের তৎকালীন সাংসদ বীরেন কাঠামের উদ্যোগে কাঠামবাড়ি থেকে কাঁঠালগুড়ি মোড় পর্যন্ত একটি সরু পাকা রাস্তা তৈরি হয়েছিল। পিডব্লিউডি কর্তৃপক্ষ রাস্তার রক্ষনাবেক্ষণের দায়িত্ব পাওয়ার পর সেটি চওড়া করা হয়। কিন্তু কৃষিজমি অধিগ্রহণ না করেই সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ পর্যায়ক্রমে রাস্তা সম্প্রসারণ করে। ফলে প্রচুর উর্বর কৃষিজমি হাতছাড়া হয়। জমির ক্ষতিপূরণের দাবিতে ২০১৯ সাল থেকে আন্দোলন চলছে। মাল ব্লক প্রশাসনকে একাধিকবার জানানো সত্ত্বেও ক্ষতিপূরণ জোটেনি।‘ একই কথা জানিয়েছেন রশিদুল হক, বিমল রায়, আবেদ আলি, ভারতী রায় প্রমুখ। তাঁদের সাফ কথা, ক্ষতিপূরণ না পাওয়া পর্যন্ত রাস্তা সম্প্রসারণের কাজ আটকে রাখা হবে। সরকার জমি অধিগ্রহণ করুক। তাঁরা জমি দিতে রাজি। কিন্তু ক্ষতিপূরণ চাই।

- Advertisement -

এদিনের বৈঠকে গৃহীত সিদ্ধান্তের কথা লিখিতভাবে রাস্তা নির্মাণের বরাতপ্রাপ্ত সংস্থাকে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন ভূমিরক্ষা কমিটির সদস্যরা। যদিও নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক পিডব্লউডির এক আধিকারিক জানান, কৃষকদের কাছ থেকে নতুন করে জমি নেওয়া হচ্ছে না। পুরোনো রাস্তার দুই ধারের কাঁচা অংশ সম্প্রসারণের কাজে ব্যবহার করা হচ্ছে। অযথা কাজে বাধা দেওয়া হচ্ছে। স্থানীয় বাসিন্দারা না বুঝেই এসব করছেন বলে তাঁর দাবি।