হাতে ভাজা মুড়ির চাহিদা ব্যাপক অন্দরান-ফুলবাড়িতে

282

তুফানগঞ্জ: যুগের সঙ্গে তাল মিলিয়ে সবকিছুই এখন মেশিন নির্ভর হয়ে গিয়েছে। আগের মতো করে হাতে ভাজা মুড়ি পাওয়া যায় না বললেই চলে। বর্তমানে নানা ধরনের ক্ষতিকর কেমিক্যাল মুড়িতে মেশানো হয়। ফলে নানা শারীরিক সমস্যাও দেখা দেয়। তবে এখনও হাতে ভাজা মুড়ির চাহিদা রয়েছে তুফানগঞ্জ ১ ব্লকের অন্দরান-ফুলবাড়িতে।

অন্দরান-ফুলবাড়ি ১ গ্রাম পঞ্চায়েতের উল্লারঘাট এলাকায় মায়া দেবনাথ প্রায় ১০ বছর ধরে মুড়ি ভাজার কাজ করেন। মাসে ৩০০ কেজি মুড়ি বিক্রি হয়। এবারও পুজোর আগে সপ্তাহে ৩০০-৪০০ কেজি মুড়ির অর্ডার হয়ে গিয়েছে। মায়াদেবী জানান, কোনও কেমিক্যাল ছাড়াই মাটির উনুনে কাঠের খড়ি দিয়ে মুড়ি ভাজেন তিনি। বিভিন্ন জায়গার মানুষ এসে অর্ডার দিয়ে যান। পুজোর আগে মুড়ির মোয়া তৈরির জন্য বেশি করে অর্ডার আসছে বলেও জানিয়েছেন তিনি। ৬০ টাকা কিলো দরে মুড়ি বিক্রি হয়ে থাকে। কেজি প্রতি ১০ থেকে ১৫ টাকা আয় হয়।

- Advertisement -