চর্মরোগ, ইএনটি বিশেষজ্ঞ না থাকায় তুফানগঞ্জ মহকুমা হাসপাতালে সমস্যায় রোগীরা

307
Exif_JPEG_420

শিশির গুহ  তুফানগঞ্জ : তুফানগঞ্জ মহকুমা হাসপাতালে চর্মরোগ বিশেষজ্ঞ এবং নাক-কান-গলা (ইএনটি) বিশেষজ্ঞ নেই। তার ফলে রোগীরা সমস্যায় পড়েছেন। চর্মরোগ এবং ইএনটি বিশেষজ্ঞকে দেখাতে হলে অনেককেই প্রাইভেট চেম্বারে যেতে হচ্ছে। আর তা না হলে ২৫ কিলোমিটার দূরে কোচবিহার সরকারি মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে যেতে হচ্ছে। এর ফলে সময় ও টাকা দুই-ই বেশি ব্যয় হয়। আর এর জেরে তুফানগঞ্জ মহকুমা হাসপাতালে চর্মরোগ বিশেষজ্ঞ ও ইএনটি বিশেষজ্ঞ নিযোগের দাবি উঠেছে। বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্তপক্ষের নজরে আনা হয়েছে বলে হাসপাতাল কর্তপক্ষ জানিয়েছে।

অসম সীমান্ত লাগোয়া তুফানগঞ্জ মহকুমায় ২৫টি গ্রাম পঞ্চায়েত এবং একটি পুরসভা রয়েছে। এই সমস্ত এলাকার মানুষ চিকিত্সা পরিসেবার জন্য তুফানগঞ্জ মহকুমা হাসপাতালের উপর নির্ভরশীল। বর্তমানে মহকুমা হাসপাতালে ২১ জন মেডিকেল অফিসার, একজন দন্ত বিশেষজ্ঞ, একজন হোমিয়োপ্যাথি চিকিত্সক এবং একজন অ্যানাস্থেটিস্ট রয়েছেন। কিন্তু হাসপাতালে কোনো ইএনটি বা চর্মরোগ বিশেষজ্ঞ নেই। ফলে এসব ক্ষেত্রে রোগীদের ভরসা হয় প্রাইভেট চেম্বার অথবা কোচবিহার মেডিকেল।

- Advertisement -

তুফানগঞ্জ শহরের ৩ নম্বর ওয়ার্ডের বাসিন্দা পেশায় আইনজীবী পার্থ বর্মা বলেন, তুফানগঞ্জ মহকুমা হাসপাতালে যাঁরা চিকিত্সা করাতে আসেন, তাঁদের মধ্যে অনেকেরই আর্থিক অবস্থা ভালো নয়। হাসপাতালে যদি একজন চর্মরোগ বিশেষজ্ঞ থাকতেন, তাহলে চর্মরোগে আক্রান্তদের সময় ও টাকা খরচ করে কোচবিহার সরকারি মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে যেতে হত না। শহরের ৩ নম্বর ওয়ার্ডের মদনমোহনপাড়ার বাসিন্দা তথা পেশায় বিবেকানন্দ উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক দিলীপ দে বলেন, প্রায় এক বছর ধরে তুফানগঞ্জ মহকুমা হাসপাতালে ইএনটি বিশেষজ্ঞ নেই। এটা মেনে নেওয়া যায় না। যাঁদের টাকা আছে, তাঁরা না হয় অন্য ব্যবস্থা করছেন। কিন্তু গরিব মানুষকে ২৫ কিলোমিটার দূরে কোচবিহার মেডিকেলে যেতে হচ্ছে। সরকারি হাসপাতালে কেন গরিব মানুষ সঠিক পরিসেবা পাবেন না? অবিলম্বে হাসপাতালে ইএনটি বিশেষজ্ঞ নিযোগ করা উচিত। পেশায় ব্যবসাযী দেবব্রত তন্ত্রী বলেন, তুফানগঞ্জ মহকুমার অনেক জায়গায় জল ভালো নয়। মহকুমায় বহু মানুষকে চর্মরোগে ভুগতে হয়। সেজন্য হাসপাতালে একজন চর্মরোগ বিশেষজ্ঞ নিযুক্ত হলে সাধারণ মানুষ খুব উপকৃত হবেন। তুফানগঞ্জ মহকুমা হাসপাতালের সুপার মৃণালকান্তি অধিকারী বলেন, তুফানগঞ্জ মহকুমা হাসপাতালে চর্মরোগ এবং ইএনটি বিশেষজ্ঞ নিযোগের বিষযে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে। এবিষযে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষই সিদ্ধান্ত নেবে।