চিকিৎসকহীন সুস্বাস্থ্যকেন্দ্রের দায়িত্বে নার্স ও ফার্মাসিস্ট

56

ময়নাগুড়ি: চলতি বছরের অগাষ্ট মাসের ১৩ তারিখ করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়েছে রামসাই সুস্বাস্থ্যকেন্দ্রের একমাত্র চিকিৎসকের। ঘটনার পর কেটে গিয়েছে প্রায় এক মাসের বেশী সময়৷ যদিও এখনও সুস্বাস্থ্যকেন্দ্রে কোনও স্থায়ী চিকিৎসক নিয়োগ হয়নি৷ এই পরিস্থিতিতে সুস্বাস্থ্যকেন্দ্রের সমস্ত দায়িত্ব  সামলে চলেছেন নার্স ও ফার্মাসিস্ট। ফলত সমস্যায় পড়েছেন গ্রামবাসীরা৷ ঘটনাটি ময়নাগুড়ি ব্লকের রামশাই গ্রামের৷

স্থানীয় সূত্রে খবর, রামশাই সংলগ্ন আমগুড়ি গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকায় জ্বরের প্রকোপে মৃত্যু হয়েছে দুই শিশুর। এই পরিস্থিতিতে গ্রামের একমাত্র সুস্বস্থ্যকেন্দ্রে চিকিৎসক না থাকায় দুশ্চিন্তায় ঘুম উড়েছে গ্রামবাসীদের৷ অনেকেরই অভিযোগ, শিশুরা জ্বরে আক্রান্ত হলেও কোনও পরিষেবা মিলছে না৷ সুস্বাস্থ্যকেন্দ্রের দায়িত্বে থাকা লোকজন ময়নাগুড়ি ব্লক প্রাথমিক স্বাস্থ্য কেন্দ্রে যাওয়ার পরামর্শ দিচ্ছেন৷ এই পরিস্থিতিতে এক প্রকার বাধ্য হয়েই প্রায় ১৫ কিলোমিটার পথ পাড়ি দিয়ে যেতে হচ্ছে ময়নাগুড়ি ব্লক প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্রে।

- Advertisement -

সুস্বাস্থ্যকেন্দ্রের এক নার্সিং স্টাফ জানান, দ্রুত চিকিৎসক নিয়োগের দাবি যুক্তিসঙ্গত৷ বিষয়টি ওপরমহলে জানানো হয়েছে। জল্পাইগুড়ি জেলার মুখ্য স্বস্থ্য অধিকর্তা জ্যোতিষচন্দ্র দাস জানান,  স্বাস্থ্যকেন্দ্রে চিকিৎসক না থাকার বিষষয়টি জানা নেই, বিষয়টি খতিয়ে দেখা হবে। জলপাইগুড়ির জেলাশাসক মৌমিতা গোদারা বসু জানান, পরিস্থিতির দিকে নজর রাখা হচ্ছে।