ভ্যাট নেই, যত্রতত্র আবর্জনায় ছড়াচ্ছে দূষণ

97

রায়গঞ্জ: শহরে নিয়মিত আবর্জনা পরিষ্কার করা হচ্ছে না, ড্রেনগুলি অপরিষ্কার থেকে যাচ্ছে, যেখানে সেখানে স্তুপাকারে জমে আছে অবর্জনা এসমস্ত বিষয়ে অভিযোগ তুলেছেন বাসিন্দারা। একাধিক ওয়ার্ডের বিভিন্ন জায়গায় দুদিন তিনদিন ধরে জঞ্জাল জমে থাকছে সেখানে থেকে রীতিমতো দুর্গন্ধ ছড়াচ্ছে। ফলে স্বাভাবিকভাবেই ক্ষোভ জমেছে শহরবাসীর মধ্যে। এ বিষয়ে পুর প্রশাসনকে জানানো হলেও উদাসীনতার পরচয় দিয়েছে বলে অভিযোগ। যদিও শহরবাসীর অভিযোগ মানতে নারাজ পুর প্রশাসন। এ ব্যাপারে তাদের দাবি প্রতিদিনই শহরের আবর্জনা সাফাই করা হয়।

রায়গঞ্জ শহরের বাসিন্দাদের অভিযোগ, এলাকায় পর্যাপ্ত পরিমাণে ডাস্টবিন নেই ফলে রাস্তার পাশেই বাসিন্দারা আবর্জনা ফেলছে। ময়লা ফেলার নির্দিষ্ট জায়গা না থাকার ফলে সমস্যা আরও বেড়েছে। যত্রতত্র আবর্জনা পড়ে থাকায় মশা মাছির উপদ্রব বেড়ে যাওয়ার পাশাপাশি দুর্গন্ধও ছড়াচ্ছে। শহরের কলেজপাড়া, দেবীনগর, নেতাজি পল্লী, মোহনবাটি এলাকাসহ একাধিক জায়গায় একই রকম দৃশ্য দেখা যাচ্ছে। রাস্তাঘাট ড্রেন আগের মতন পরিষ্কার থাকছেনা সময় মতন পুরসভার গাড়ি না আসার ফলে সমস্যা প্রতিনিয়ত বেড়ে চলেছে।

- Advertisement -

বীরনগরের বাসিন্দা জ্যোতি প্রামানিক বলেন, ‘এলাকায় ডাস্টবিন নেই আর যেগুলো আছে সেই ডাস্টবিনে জমে থাকা নোংরা নিয়মিত নিয়ে যাওয়া হয় না। এলাকায় ময়লা জমে থাকছে সমস্যাও বাড়ছে। যখন গবাদিপশু মাঝেমধ্যে সেই সমস্ত নোংরা ছড়িয়ে ছিটিয়ে দিচ্ছে তখন তো সেই এলাকা দিয়ে হাঁটাচলা করাও দুষ্কর হয়ে ওঠে। ওই সমস্ত নোংরা আবর্জনা ক্রমশই মশা মাছির আঁতুড়ঘর হয়ে উঠেছে। আমরা রীতিমতো ভয়ে ভয়ে রয়েছি ওই নোংরা আবর্জনা থেকে রোগ ছড়াতে পারে বলে। পুরসভা সঠিকভাবে সাফ সাফাইয়ের কাজ করলে রাস্তার উপর এভাবে নোংরা পড়ে থাকত না। আর এই আবর্জনা থেকে দুর্গন্ধ বেরিয়ে এলাকা দূষিত করত না।‘

পুরসভার ভাইস চেয়ারম্যান অরিন্দম সরকার বলেন, ‘প্রতিদিনই পুরসভার সমস্ত ওয়ার্ডগুলো পরিষ্কার করা হচ্ছে, দু-একটি জায়গায় যদি গাফিলতি থাকে সেগুলি খোঁজ নিয়ে দেখছি। যত দ্রুত সম্ভব সমাধান করে দেওয়া হবে। রায়গঞ্জ শহরের বাসিন্দারা যাতে এই সমস্যার মধ্যে না ভোগে তার জন্য তৎপর রায়গঞ্জ পুরসভা ও পুর কর্তৃপক্ষ।‘