শীতলাপাড়ায় ফের দুষ্কৃতী হানা, চোর ধরে পুলিশে দিল জনতা

335

শিলিগুড়ি: চোরের উপদ্রবে অতিষ্ট শিলিগুড়ি পুরনিগমের ৩১ নম্বর ওয়ার্ডের শীতলাপাড়ার বাসিন্দারা। গত সাতদিনে ছয়টি বাড়িতে চোরের হানা, ১০ জনেরও বেশি চোর ধরা পড়লেও ফের রবিবার মধ্যরাতে এলাকায় পাহাড়া দিয়ে চোর ধরলেন স্থানীয়রা।

প্রায় প্রতিদিনই শীতলাপাড়ায় চোরের উপদ্রবে রীতিমত আতঙ্কিত এলাকাবাসী স্থায়ী সমাধান চাইছেন। এলাকায় পুলিশি টহলদারি বাড়ানো হোক বলে দাবি করেছেন তারা।

- Advertisement -

গত কয়েকদিন ধরে এলাকায় চোরের উপদ্রব বেড়ে যাওয়ায় স্থানীয়রা রাত পাহারা দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেন। সেইমতো রবিবার রাতেও এলাকায় পালা করে পাহারা চলছিল। স্থানীয় সূত্রে খবর, রাত সাড়ে ১২টা নাগাদ একটি বাড়িতে তিনজনকে ঢুকতে দেখা যায়। স্থানীয়রা যাঁরা পাহারা দিচ্ছিলেন তাঁরা বিষয়টি লক্ষ্য করেই এগিয়ে গিয়ে অভিযুক্তদের ধরতে গেলে দুজন পালিয়ে যায় এবং একজন ধরা পড়ে। অভিযুক্তকে ধরে গণধোলাই দেওয়া শুরু করে উত্তেজিত জনতা। এরমাঝেই ঘটনার খবর যায় নিউ জলপাইগুড়ি থানায়।

ঘটনাস্থলে পৌঁছায় এনজেপি থানার পুলিশ। অভিযুক্তকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্যে শিলিগুড়ি জেলা হাসপাতালে নিয়ে যায়। এরপর তাকে আটক করে থানায় নিয়ে যাওয়া হয়েছে। স্থানীয় সূত্রে খবর, এই ঘটনার পর রবিবার রাতে ফের দুই দুষ্কৃতী এলাকায় হানা দেয়। তাদেরও হাতেনাতে ধরে পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে। একের পর এক এই ঘটনার এলাকাবাসীর মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়েছে।

প্রসঙ্গত, কয়েকদিন আগে এলাকার একটি সোনার দোকান ও বাড়িতে ঢুকে সর্বস্ব লুঠ করে নিয়ে যায় চোরের দল। তারপরের দিন রাতেই পাহারা দিয়ে দুজনকে ধরে পুলিশের হাতে তুলে দেয় এলাকাবাসী। তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করে পরের দিনই আরও সাতজন গ্রেপ্তার করে এনজেপি থানার পুলিশ। তারপরেও আরও তিনটি বাড়িতে দুস্কৃতী হানা দেয়, স্থানীয়দের হাতে চোর ধরাও পড়ে। এতকিছুর পরেও এলাকায় চোরের উপদ্রব না কমায় অতিষ্ট সাধারণ মানুষ রাতে পুলিশি নজরদারি বাড়ানোর দাবি জানিয়েছে।

বিষয়টি নিয়ে শিলিগুড়ি পুলিশের জোন (১)-এর এক কর্তা বলেন, ‘রাতে পর্যাপ্ত পুলিশি টহলদারি রয়েছে। শীতলাপাড়ায় নজরদারি বাড়ানো হয়েছে। বেশ কয়েকজনকে গ্রেপ্তারও করা হয়েছে।’