অপ্রয়োজনে বাইরে বেরলেই তুলে নিয়ে যাবে কম্যান্ডো

394

তিরুবনন্তপুরম: একটি গ্রামে ৫ দিনে ৬০০ জনের লালার নমুনা সংগ্রহ করে করোনা পরীক্ষা করা হয়। তাঁদের মধ্যে ১১৯ জনের রিপোর্ট করোনা পজিটিভ এসেছে। এরফলে, রীতিমতো ক্ষুব্ধ প্রশাসন। প্রশাসনের ধারণা স্বাস্থ্যবিধি না মানায় করোনা সুপার স্প্রেড করেছে। বাধ্যহয়ে প্রশাসনের তড়িঘড়ি সিদ্ধান্তে কম্যান্ডের নজরদারিতে রয়েছে গ্রামবাসী। অপ্রয়োজনে বাড়ির বাইরে বেরলে ও করোনা বিধি না মানলেই ঘাড় ধরে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে কোয়ারান্টিনে। কেরলের তিরুবন্তপুরমের উপকূলবর্তী একটি গ্রাম পুনথুরায় করোনার এই পরিস্থিতি। গোটা গ্রাম সিল করে দেওয়া হয়েছে। বাসিন্দাদের যাতে প্রতিদিনের খাবার পেতে অসুবিধা না হয়, তার জন্য বাড়ি বাড়ি ৫ কেজি করে চালও পাঠিয়েছে সরকার৷

পুনথুরায় ২৫ জন কম্যান্ডো মোতায়েনের পাশাপাশি জোরকদমে করোনা পরীক্ষা চলছে। যদিও কম্যান্ডো মোতায়েনের আগেই গ্রামবাসীদের সতর্ক করে মাইকিংও করা হয়। অপ্রয়োজনীয় কারণে বাড়ি থেকে বেরিয়ে ঘোরাঘুরি করলেই তুলে নিয়ে যাবে কম্যান্ডো৷কেরল সরকারের তরফে জানানো হয়েছে, গত ৫ দিনে প্রায় ৬০০ জনের করোনা পরীক্ষা হয়েছে এই গ্রামে। যার মধ্যে ১১৯ জনের পজিটিভ এসেছে। এই গ্রামের অধিকাংশের জীবিকা মাছ ধরা৷

- Advertisement -

সূত্রের খবর, এই গ্রামে প্রথম একজন মাছ ব্যবসায়ীর থেকেই করোনা ছড়িয়ে পড়ে৷ প্রথমদিকে আক্রান্তদের জীবনযাত্রা খতিয়ে দেখা যায়,ঘন ঘন মাছ নিয়ে তামিলনাড়ু থেকে স্থানীয় বাজারে এনে বিক্রির মাঝেই এক করোনা আক্রান্তের সংস্পর্শে এসে বাকিদের শরীরেও ছড়িয়ে পড়েছে মারণ ভাইরাস৷তাই এই গ্রাম থেকে তামিলনাড়ুতে মাছ ধরতে যাওয়ার উপর সাময়িক নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছে৷ বাইরে থেকে নৌকা নিয়েও কেরলে ফিরে আসা যাবে না বলে জানিয়েছে রাজ্য সরকার৷