ভোপাল, ১১ মেঃ মধ্যপ্রদেশের রাজধানী ভোপাল থেকে ১৩০ কিলোমিটার দূরে শাঁকা শ্যামজি গ্রামে গত ৪০০ বছরে কোনো সন্তানের জন্ম হয়নি। কোনো মা এই গ্রামে সন্তানের জন্ম দেওয়ার সাহস জোটাতে পারেননি। কারণ এই গ্রামের ওপর দেবীর অভিশাপ রয়েছে বলে বিশ্বাস স্থানীয়দের। এখানে সন্তানের জন্ম দিলেই হয় সেই সদ্যোজাত, নয়তো প্রসূতির মৃত্যু হয়। জানা গিয়েছে, এই রেওয়াজ চলছে ষোড়শ শতক থেকে।

শোনা যায়, ষোড়শ শতকের কোনও এক সময় গ্রামকে অভিশাপ দিয়েছিলেন ঈশ্বর। দেবতারা গ্রামে একটি মন্দির তৈরি করছিলেন। সেই সময় এক মহিলা গম ভাঙানোর কাজে ব্যস্ত ছিলেন। ওই মহিলার কাজে মনঃসংযোগ ক্ষুন্ন হয় দেবতাদের। এতেই রেগে গিয়ে তাঁরা অভিশাপ দেন যে, এই গ্রামে কোনও শিশুর জন্ম হবে না। তারপর থেকেই অন্তঃসত্ত্বা মহিলাদের প্রসবের সময় গ্রামের সীমানার বাইরে নিয়ে যাওয়া হয়। সন্তান প্রসবের জন্য গ্রামের বাইরে একটি ঘরও তৈরি করা হয়েছিল।

এই রেওয়াজকে কুসংস্কার বলে মানতে নারাজ স্থানীয়রা। তাঁরা দাবি করেছেন, এর ব্যতিক্রম হলে যে ফল ভুগতে হয়, তা তাঁরা বেশ কয়েকটি ক্ষেত্রে দেখেছেন।