স্বার্থপরের মতো বেতন ভোগ করতে চাননি এই স্কুল শিক্ষক, যা করলেন তিনি

195

বর্ধমান: অসহায় করোনা আক্রান্তদের পাশে দাঁড়ালেন শিক্ষক। নিজের বেতনের টাকা দিয়ে অসহায় মানুষের সাহায্যার্থে এগিয়ে এলেন পূর্ব বর্ধমানের ভাতারের স্কুল শিক্ষক শেখ জানে আলম। খাদ্য সামগ্রীর পাশাপাশি ওষুধ সবকিছু দিয়ে সাহায্য করে চলেছেন তিনি। স্কুল শিক্ষকের এই মানবিক কর্মকাণ্ড সাড়া ফেলেছে ভাতারের বাসিন্দাদের মধ্যে।

করোনা পরিস্থিতিতে এক বছর সময় ধরে স্কুল বন্ধ রয়েছে। তবে, নির্দিষ্ট সময়েই বেতন পেয়ে যাচ্ছেন শিক্ষকরা। এই অতিমারিতে বেতনের টাকা সম্পূর্ণ ভোগ করাটা মেনে নিতে পারেননি শিক্ষক শেখ জানে আলম। সেই কারণে করোনা আক্রান্ত রোগী ও তাদের পরিবারের পরিত্রাতার ভূমিকায় অবতীর্ণ হয়েছেন তিনি।

- Advertisement -

গ্রামের বাসিন্দারা জানান, অসহায় দিনমজুর পরিবারে কারোর করোনা হলেই ওষুধ সহ যাবতীয় জিনিসপত্র জোগাড় করতে একপ্রকার হিমসিম খেতে হয়। এই অসহায় পরিবারগুলির এখন ভরসা ওই শিক্ষক। নিজের বেতনের টাকায় ওষুধপত্র ও দুধ, ডিম সহ নানা পুষ্টিকর খাবার কিনে ওই শিক্ষক নিজেই পৌঁছে দিচ্ছেন করোনা আক্রান্তদের বাড়িতে। তিনি জানান, করোনার কারণে দীর্ঘদিন ধরে স্কুল বন্ধ রয়েছে। স্কুলে যেতে না হলেও প্রতিমাসে নির্দিষ্ট দিনে বেতন পেয়ে যাচ্ছি। অতিমারির মধ্যে স্বার্থপরের মতো বেতনের টাকা ভোগ করাটা তিনি মন থেকে মেনে নিতে পারছিলাম না। সেই ভাবনা থেকেই নিজের বেতনের অর্থ দিয়েই করোনা আক্রান্ত অসহায় পরিবারগুলির পাশে দাঁড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছি। মানুষের আশীর্বাদই প্রেরণা যোগাচ্ছে।