তৃণমূল-বিজেপি সংঘর্ষে উত্তপ্ত তুফানগঞ্জ, আহত ১১

281

বক্সিরহাট: তৃণমূল ও বিজেপির সংঘর্ষে উত্তপ্ত হয়ে উঠল তুফানগঞ্জ ২ ব্লকের শালবাড়ি ২ ও বারকোদালি ২ গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকা। সোমবার রাত থেকে মঙ্গলবার দুপুর পর্যন্ত দফায় দফায় সংঘর্ষে দুই দলের ১১জন কর্মী আহত হয়েছেন।

মঙ্গলবার ভারেয়া চৌপথিতে পরেশ রাভা নামে এক তৃণমূল কর্মীকে বিজেপি আশ্রিত দুষ্কৃতীরা মারধর করে বলে অভিযোগ করেন তৃণমূলের বারকোদালি ২ অঞ্চল কমিটির সভাপতি সরজিত রাভা। তৃণমূলের এই অভিযোগকে অস্বীকার করেন বিজেপির ৩১ নম্বর মণ্ডলের সাধারণ সম্পাদক সুশান্ত দাস। তাঁর পালটা অভিযোগ, তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতীরা বেগারখাতায় তাঁদের কর্মী মৃণাল চন্দ ও ধনমতিয়ার ২২৭ নম্বর বুথ সভাপতিকে বাড়িতে ঢুকে মারধর করে।

- Advertisement -

অন্যদিকে, গতকাল রাতে শালবাড়ির তুরকানিকুঠি বাজারে বিজেপির দলীয় দপ্তরের সামনে তৃণমূল ও বিজেপির সংঘর্ষ হয়। বিজেপি যুব মোর্চার জেলা কমিটির সদস্য ধীরাজ বর্মন জানান, গতকাল রাতে দলীয় কার্যালয়ে তাঁরা মিটিং করছিলেন। সেইসময় তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতীরা দলীয় কার্যালয়ে ইট-পাথর ছুঁড়তে থাকে। ঘটনায় যুব মোর্চার ৩২ নম্বর মণ্ডলের সহ সভাপতি আহত হন। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। যদিও সমস্ত অভিযোগ অস্বীকার করে তৃণমূলের শালবাড়ি-২-এর অঞ্চল সহ সভাপতি বৈশাখ মান্তা জানান, বিজেপি আশ্রিত কয়েকজন দুষ্কৃতী তৃণমূল কর্মীদের গালিগালাজ করে ও হুঁশিয়ারি দেয়। এর প্রতিবাদ করতে গেলে তাদের ওপর ইট-পাথর ছোঁড়া হয়। এতে তাঁদের বেশ কয়েকজন কর্মী আহত হন। বক্সিরহাট ব্লক প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্রে নিয়ে যাওয়া হলে প্রাথমিক চিকিৎসার পর ছেড়ে দেওয়া হয়। ঘটনায় তৃণমূল ও বিজেপি উভয়ই থানায় অভিযোগ জানিয়েছে। বিজেপির তুফানগঞ্জ বিধানসভার সংযোজক উৎপল দাস জানান, তাঁরা মানুষের দাবি নিয়ে আন্দোলন করায় বিভিন্ন এলাকায় তৃণমূল কর্মীরা আক্রমণ করছেন। বক্সিরহাট থানার ওসি শুভজিৎ ঝা জানান, এলাকায় পুলিশ টহল দিচ্ছে। ঘটনার তদন্ত চলছে।