রায়গঞ্জে দেওয়াল লিখনকে কেন্দ্র করে উত্তেজনা

179

রায়গঞ্জ: দেওয়াল লিখনকে কেন্দ্র করে উত্তেজনা ছড়াল রায়গঞ্জে। মঙ্গলবার ঘটনাটি ঘটে রায়গঞ্জের ২৬ নম্বর ওয়ার্ডে।

বিজেপির হোয়াইট ওয়াশ করা একটি দেওয়ালে তৃণমূল সাইট ফর লিখে দেয় বলে অভিযোগ। সেই দেওয়ালে বিজেপির পদ্ম আঁকতেই উত্তেজনার সৃষ্টি হয়। তৃণমূল কংগ্রেসের কর্মীদের দাবি, তাঁরাই হোয়াইট ওয়াশ করেছে। তাঁদের দেওয়ালে বিজেপি লিখতে পারে না। অন্যদিকে বিজেপির দাবি, রায়গঞ্জজুড়ে তাঁরাই হোয়াইট ওয়াশ করিয়েছে। তৃণমূল একটিও হোয়াইট ওয়াশ করায়নি। তৃণমূল ইচ্ছে করে এই কাজ করেছে। কিন্ত তৃণমূল কর্মীরা তা মানতে নারাজ।

- Advertisement -

স্থানীয় তৃণমূল কংগ্রেসের কাউন্সিলার অভিজিৎ সাহা জানান, তাঁর বাড়ির পাশের দেওয়াল। অথচ তাঁর অনুমতি নেওয়া হয়নি। পাশাপাশি হোয়াইট ওয়াশ করা হলেও সেখানে সাইট ফর লেখা ছিল না। তাই তাঁদের ছেলেরা সাইট ফর টিএমসি লিখে দিয়েছে। পাশাপাশি তিনি বলেন, ‘আমরাও দলের তরফে বিভিন্ন কর্মসূচির জন্য হোয়াইট ওয়াশ করে থাকি।’ বিজেপির রায়গঞ্জ উত্তর মণ্ডলের প্রাক্তন সভাপতি অসিত ঘোষ জানান, হোয়াইট ওয়াশের পর সাইট ফর লিখতে হয়। বিজেপির কর্মীরা তা লেখেননি। কাউন্সিলার ঠিক কাজ করেছেন। শিল্পী দিলিপ রবিদাস বলেন, ‘আমি নিজে হোয়াইট ওয়াশ করেছি। প্রতিটি দেওয়াল হোয়াইট ওয়াশ ও প্রতীক আঁকার জন্য ১২০ টাকা পাই। সোমবার হোয়াইট ওয়াশের পর সাইট ফর বিজেপি লিখতে ভুলে গিয়েছি। এদিন সকালে ওই ওয়ালে প্রতীক আঁকাতে গেলে বাধা দেয়।’ বিজেপির জেলা সভাপতি বিশ্বজিৎ লাহিড়ি বলেন, ‘প্রতিটি ওয়ার্ডে ৫টি করে দেওয়াল হোয়াইট ওয়াশ করে আর নয় অন্যায়ের উপর প্রতীক সহ দেওয়ালে লেখা হচ্ছে। এদিন স্থানীয় কাউন্সিলার আমাদের কর্মীদের বাধা দিয়েছে। আমরা তার প্রতিবাদ জানিয়েছি।’ অন্যদিকে প্রাক্তন সভাপতি অসিত ঘোষের বক্তব্যে তিনি বলেন, ‘তাঁকে দলের তরফে শোকজ করা হয়েছে। তিনি তৃণমূলের সঙ্গে যোগাযোগ রাখছেন এমন অভিযোগ পেয়েছি।’ এদিন দুই পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা দেখা দিলে খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।