করোনা টিকা নিয়ে তৃণমূল-বিজেপি তরজা

154

আসানসোল: আসানসোল পুরনিগম এলাকায় ভ্যাকসিন নিয়ে রাজনৈতিক তরজায় জড়িয়ে পড়ল তৃণমূল কংগ্রেস ও বিজেপি। করোনা ভ্যাকসিন দেওয়া নিয়ে বিজেপি অযথা সাধারণ মানুষের মধ্যে বিভ্রান্তি ছড়াচ্ছে। বৃহস্পতিবার আসানসোল পুরনিগমে এক সাংবাদিক বৈঠকে পালটা জবাব দিতে গিয়ে একথাই জানালেন পুরো প্রশাসক অমরনাথ চট্টোপাধ্যায়। বুধবার আসানসোল পুরনিগমের প্রাক্তন মেয়র তথা বিজেপি নেতা জিতেন্দ্র তেওয়ারি আসানসোল পুর এলাকায় ভ্যাকসিন দেওয়া নিয়ে পুরনিগম কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে সরব হয়েছিলেন।

অমরনাথ চট্টোপাধ্যায় বলেন, ‘সংবাদমাধ্যম থেকে আমি জেনেছি মহিশীলা গ্রামের স্বাস্থ্যকেন্দ্রে করোনার প্রতিষেধক দেওয়া বন্ধ হওয়ায় কারণে বিজেপি নেতৃত্বরা ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। শুধু তাই নয় আসানসোল পুরনিগমের প্রাক্তন মেয়র জিতেন্দ্র তেওয়ারি সাধারণ মানুষের মধ্যে অযথা বিভ্রান্তি ছড়াচ্ছেন। ওই স্বাস্থ্যকেন্দ্রে ভ্যাকসিন দেওয়ার কাজে নিযুক্ত আশাকর্মীদের উপর হামলা চালানো হয়েছে। সেখানে মহিলা আশাকর্মীদের মারধর করা হয়েছে। তারই প্রতিবাদে ওই স্বাস্থ্যকেন্দ্রে ভ্যাকসিন দেওয়া বন্ধ করা হয়েছে। তবে তার পরিবর্তে ওই স্বাস্থ্যকেন্দ্র থেকে ৭০০/৮০০ মিটার দূরেই আলাদা করে একটি ভ্যাকসিন দেওয়ার কেন্দ্র খোলা হয়েছে। সেটা কি বিজেপি নেতাদের জানা আছে। তাছাড়া এই মুহূর্তে পশ্চিমবঙ্গ ভ্যাকসিন দেওয়ার ক্ষেত্রে দেশের মধ্যে প্রথম স্থান দখল করেছে৷ তা কেন্দ্র সরকারের রিপোর্টই বলেছে। তাই অযথা বিভ্রান্তি ছড়ানো বন্ধ করলে ভালো হয়।’

- Advertisement -

পুর প্রশাসক আরও বলেন, ‘অভিযোগ করা ভালো। কিন্তু সেই অভিযোগের কি সারবত্তা আছে, সেটা তো দেখতে হবে। আসানসোল পুরনিগম এলাকায় প্রতিদিন ৬ হাজার করে ভ্যাকসিন দেওয়া হচ্ছে। পুর এলাকায় ১৩ সেন্টার থেকে ভ্যাকসিন দেওয়ার ব্যবস্থা করা হয়েছে। এছাড়াও বস্তিবাসীদের জন্য আলাদা করে ৪টি সেন্টার করা হয়েছে। আরও সেন্টার করা যায় কিনা তা আলোচনা করা হচ্ছে। যে নেতা এসব অভিযোগ করছেন তিনি মেয়র থাকার সময় কী কী কাজ করেছেন তা সবাই জানে। বিজেপি নেতাকে বলবো সবকিছুর বিরোধিতা না করে, ভালো কাজের প্রশংসা করুন।’