বিস্ফোরক অভিযোগ তুলে দল ছাড়ছেন তৃণমূল জেলা সহ-সভাপতি

1641

মণীন্দ্র নারায়ণ সিংহ, আলিপুরদুয়ার: বিধানসভা ভোটের মুখে বড়সড় ভাঙন আলিপুরদুয়ার জেলা তৃণমূলে। পাশের জেলা কোচবিহারে বিক্ষুব্ধ দলীয় বিধায়ক মিহির গোস্বামীকে নিয়ে তৃণমূল কংগ্রেস রীতিমতো বিব্রত। ঠিক সেই আবহেই দলের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করার কথা প্রকাশ্যে জানালেন আলিপুরদুয়ার জেলা তৃণমূলের সহ-সভাপতি আশিস দত্ত। বুধবার দলের বিরুদ্ধে বিস্ফোরক মন্তব্য করে দল না থাকার কথা জানালেন তিনি।

রাজ্য বিধানসভা নির্বাচন যত এগিয়েছে আসছে, রাজ্যের শাসকদলের মধ্যে ভাঙনের ছবি স্পষ্ট হতে শুরু করেছে। উত্তরে মিহির গোস্বামী এবং দক্ষিণবঙ্গে শুভেন্দু অধিকারীকে কলকাতার তিলজলার তৃণমূল ভবনের কপালে ভাঁজ পড়েছে। রাজ্য বিধানসভা ভোটের মুখে দলের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করার কথা বলে আরও অস্বস্তি বাড়ালেন আলিপুরদুয়ার জেলা তৃণমূলের সহ-সভাপতি আশিস দত্ত৷ তিনি পুরসভার প্রাক্তন চেয়ারম্যানও বটে৷ স্বাভাবিকভাবে জেলা তৃণমূলের এই হেভিওয়েট নেতা দলে না থাকার কথা বলায় রাজনৈতিক মহলে রীতিমতো হইচই পড়ে গিয়েছে। রাজনৈতিক মহলের মতে, বিধানসভা ভোটের আগে আলিপুরদুয়ারে তৃণমূল কংগ্রেসে বড়োসড় ভাঙনের আশঙ্কা রয়েছে।

- Advertisement -

বুধবার দলের বর্তমান জেলা নেতৃত্বের বিরুদ্ধে তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন আশিসবাবু।  তবে অন্য কোনও দলে যোগ দিচ্ছেন কিনা তা নিয়ে, এখনই খোলাসা করে কিছু জানাতে চাননি তিনি৷ এদিন আশিসবাবুর সঙ্গেই দলের বিরুদ্ধে বিস্ফোরক বক্তব্য রেখেছেন আরেক জেলা সহ-সভাপতি তথা প্রাক্তন যুব জেলা সভাপতি অভিজিৎ মজুমদার (বাপ্পা)।  তিনি বলেন, দলটা এখন পিকনিক পার্টি তে পরিণত হয়েছে।

যদিও আশিষবাবু দলে বহাল রাখতে ময়দানে নামানো হয়েছে দলনেত্রী মমতার পছন্দের টিম পিকেকে। আগাম আভাস পেয়ে কয়েকদিন আগেই টিম পিকে’র দুই প্রতিনিধি দেখা করে গিয়েছেন আশিসবাবুর সঙ্গে৷ কিন্তু তাঁর মন ভেজাতে পারেনি টিম পিকে৷ আশিসবাবু জানিয়েছেন, দলে থেকে অনেকভাবেই অসম্মানিত হয়েছি। ফলে এ দলে থাকার আর প্রশ্নই নেই। দলের বর্তমান জেলা সভাপতি মৃদুল গোস্বামী বলেন, ‘আমরা দল থেকে কাউকে হারাতে চাই না। জেলার বাইরে আছি, ফিরে গিয়ে আশিসবাবুর সঙ্গে কথা বলব।’