রবিবার তৃণমূলের ইস্তাহার প্রকাশ, কর্মসংস্থানে গুরুত্ব

114

কলকাতা: গত ১০ বছরের শাসনকালে রাজ্যে একাধিক জনকল্যাণমূলক প্রকল্প হাতে নিয়ে মানুষের মন জয় করার চেষ্টা করেছেন তৃণমূলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ২০২১ সালের বিধানসভা ভোট তাঁর কাছে বড় চ্যালেঞ্জ। এবারও রাজ্যে তৃণমূল ক্ষমতায় এলে একাধিক প্রকল্প নেওয়া হবে বলে ইস্তাহারে জানাতে চলেছে তারা। রবিবারই কালীঘাটের বাড়ি থেকে এই ইস্তাহার পেশ করবেন তৃণমূলনেত্রী। বৃহস্পতিবারই তাঁর ইস্তাহার প্রকাশ করার কথা ছিল। কিন্তু নন্দীগ্রামে পায়ে চোট পাওয়ার কারণে সেই কর্মসূচি স্থগিত করে দিতে হয়। হাসপাতাল থেকে ছাড়া পেয়ে মমতা রবিবার ইস্তাহার প্রকাশ করেই জঙ্গলমহলে প্রচারে বেরোবেন বলে ইতিমধ্যেই জানিয়ে দিয়েছেন।

তৃণমূল সূত্রে জানা গিয়েছে, এবারের ইস্তাহারে প্রবীণদের জন্য একগুচ্ছ পরিকল্পনার কথা তৃণমূল জানাতে পারে। ইতিমধ্যেই বিনামূল্যে র‌্যাশন দেওয়ার কথা তৃণমূল ঘোষণা করেছে। কিন্তু এবার তৃণমূল সিদ্ধান্ত নিয়েছে, প্রবীণ ব্যক্তিদের বাড়িতে র‌্যাশন পৌঁছে দেওয়ার প্রকল্প নেওয়া হবে। বহু প্রবীণ ব্যক্তি দোকানে লাইনে দাঁড়িয়ে র‌্যাশন নিতে পারেন না। তাঁদের জন্য বাড়ি বাড়ি বিনামূল্যে র‌্যাশন পৌঁছে দেওয়ার কথা ইস্তাহারে বলা হচ্ছে। আবার অনেক প্রবীণ ব্যক্তির পক্ষে বিডিও অফিস বা পুরসভায় লাইনে দাঁড়িয়ে ডিজিটাল র‌্যাশন কার্ড বা স্বাস্থ্যসাথীর কার্ড করানো কঠিন হয়ে যাচ্ছে। তাঁদের জন্য এবার বাড়িতে সরকারি কর্মীদের পাঠিয়ে র‌্যাশন কার্ড বা স্বাস্থ্যসাথীর কার্ড তৈরির চিন্তাভাবনার কথা তৃণমূল ইস্তাহারে রাখতে চলেছে।

- Advertisement -

রাজ্যে কর্মসংস্থান নিয়ে বিরোধীরা তৃণমূল সরকারের বিরুদ্ধে একাধিক অভিযোগ তুলছে। এবার সেই অভিযোগের জবাব দিতে কর্মসংস্থান নিয়ে নির্দিষ্ট পরিকল্পনার কথা তৃণমূল জানাতে চলেছে। তৃণমূল ক্ষমতায় এলে কী কী উপায়ে রাজ্যে কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করা যায়, তা নিয়ে বিস্তারিত জানানো হবে। এর জন্য একটি গাইডলাইনও তৃণমূল তৈরি করেছে। অ্যাইপ্যাকের পরামর্শে এবার ইস্তাহারে কর্মসংস্থান নিয়ে বিশেষ গুরুত্ব দেওয়া হবে।

রাজ্যে মহিলাদের সমর্থন মমতার ক্ষেত্রে বরাবর কিছুটা বেশি। ইতিমধ্যেই রাজ্য সরকার মহিলাদের জন্য কন্যাশ্রী, রূপশ্রী প্রকল্প নিয়েছে। এবার এই ধরনেরই অন্য একটি প্রকল্পের কথা তৃণমূলের ইস্তাহারে বলা হবে। তাতে মহিলারা আরও বেশি উপকৃত হবেন বলেই তৃণমূলের বিশ্বাস।

রাজ্যের প্রবীণ মন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায় বলেন, ‘প্রতিবারই আমরা ইস্তাহারে যা যা প্রতিশ্রুতি দিই, তা দ্রুত রূপায়ণ করি। এবারও তার ব্যতিক্রম হবে না।‘