ফালাকাটায় কৃষি আইনের বিরোধিতায় ধারাবাহিক প্রতিবাদ তৃণমূলের

307

ফালাকাটা: ফালাকাটায় উপনির্বাচন না হলেও কেন্দ্রীয় সরকারের কৃষি আইনের বিরোধিতা থেকে সরছে না তৃণমূল কংগ্রেস। এখন একুশের ভোটকে টার্গেট করে তৃণমূল কংগ্রেস ধারাবাহিকভাবে এই আইনের বিরোধিতার জন্য একগুচ্ছ কর্মসূচি চালিয়ে যাচ্ছে। অথচ এই আইনের সমর্থনে বিজেপিকে এখনও ফালাকাটা তথা আলিপুরদুয়ারে সেভাবে পথে নামতে দেখা যাচ্ছে না। কৃষক ভোটারদের নজর ঘোরাতে তৃণমূল যে কৌশলে এগোচ্ছে, তাতে বিজেপির এই নীরবতায় দলের অন্দরে প্রশ্ন উঠেছে। যদিও দলের নেতারা জানিয়েছেন যে, শনিবার থেকেই আলিপুরদুয়ারের প্রতিটি বিধানসভা কেন্দ্রে কৃষি আইনের সমর্থনে পদযাত্রা করা হবে। তবে অন্যত্র অনেক আগে থেকেই এই কর্মসূচি শুরু হলেও আলিপুরদুয়ারে কেন দেরি হচ্ছে তা নিয়ে দলের নীচু মহল প্রশ্ন তুলেছে।

২৮ সেপ্টেম্বর কৃষি আইনের সমর্থনে কোচবিহারে বিশাল মিছিল করে বিজেপি। পাশের জেলা আলিপুরদুয়ারে বিজেপির সেরকম কর্মসূচি এখনও হয়নি। চা বাগান অধ্যুষিত হলেও এই জেলার ফালাকাটা, আলিপুরদুয়ার-১, আলিপুরদুয়ার-২ ব্লক পুরোপুরি কৃষিপ্রধান এলাকা। বীরপাড়া-মাদারিহাট, কুমারগ্রামেরও একাংশ কৃষি অধ্যুষিত। সম্প্রতি ফালাকাটায় কিষান ও খেতমজদুর তৃণমূল কংগ্রেসের জেলা কমিটি বৈঠক করে কৃষি আইনের প্রতিবাদের জন্য একগুচ্ছ কর্মসূচি ঠিক করে। উপনির্বাচন না হলেও গত বৃহস্পতিবার ভুটনিরঘাটে প্রতিবাদ মিছিল করে তৃণমূল। এদিন খগেনহাটে একই কর্মসূচি হয়।

- Advertisement -

এছাড়াও আগামী ১১ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত কুঞ্জনগর, রাইচেঙ্গার বাবুরহাট, দেওগাঁও-এর গোবিনহাট, সাকালুর হাটে কৃষি আইনের প্রতিবাদে মিছিল ও পথসভা করবে শাসক দল। কৃষক সংগঠনের জেলা সভাপতি প্রসেনজিৎ রায় বলেন, কৃষক স্বার্থে ধারাবাহিক কর্মসূচি চলছে। কেন্দ্রের এই কালাকানুনের বিরুদ্বে ফালাকাটার কৃষকরাও গর্জে উঠেছেন। ফালাকাটায় সংখ্যাগরিষ্ঠ কৃষক ভোটকে টার্গেট করেই এগোচ্ছে তৃণমূল কংগ্রেস। কৃষক সংগঠনের ব্লক সভাপতি সুনীল রায় বলেন, আপাতত একুশের বিধানসভা নির্বাচনকে লক্ষ্য করেই এই কৃষি আইন বিরোধী কর্মসূচি চলছে।

এক্ষেত্রে বিজেপির নীরবতায় দলের নীচু মহল প্রশ্ন তুলেছে। তবে কিষান মোর্চার জেলা সভাপতি সুজিত সাহা বলেন, রাজ্যের নির্দেশে শনিবারই ফালাকাটার খাড়াকদম থেকে জটেশ্বর পর্যন্ত পাঁচ কিমি রাস্তায় কৃষি আইনের সমর্থনে পদযাত্রা হবে। বিজেপির জেলা সভাপতি গঙ্গাপ্রসাদ শর্মা বলেন, শনিবার থেকে প্রতিটি বিধানসভা কেন্দ্রে পাঁচ কিমি পথে পদযাত্রা হবে। কৃষকদের লিফলেট দেওয়া হবে। নিজেদের কর্মসূচির বিলম্ব প্রসঙ্গে তিনি বলেন, নির্দিষ্ট সূচি মেনেই আমাদের কর্মসূচি হবে। আসলে তৃণমূল লোক দেখানো বিরোধিতা করছে। রাজ্যের বিরোধিতার জন্য কেন্দ্রের কিষান সম্মাননিধি যোজনার সুবিধা থেকে বাংলার কৃষকরা বঞ্চিত। এর জবাব তৃণমূল দিতে পারছে না। কেন্দ্রের কৃষি আইন কৃষকদের স্বার্থেই পাশ হয়েছে। কাল ফালাকাটার মিছিল থেকেই আমাদের পদযাত্রা শুরু হচ্ছে।