গোষ্ঠীদ্বন্দ্বে গুলিবিদ্ধ ৫ তৃণমূলকর্মী

518

ক্যানিং: শনিবার রাত থেকে রবিবার দুপুর পর্যন্ত দক্ষিণ ২৪ পরগণার নবগঠিত সুন্দরবন ও বারুইপুর পুলিশ জেলার দুই জায়গায় তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্বে গুলিবিদ্ধ ৫ জন। আহত হয়েছেন আরও বেশ কয়েকজন। পুলিশ সূত্রে খবর, বাসন্তী ঢোলার হাটের দুই জায়গায় আদি তৃণমূল ও নব তৃণমূলের সংঘর্ষে গুলি চলে। গোটা ঘটনায় অভিযোগের তির যুবতৃণমূলের বিরুদ্ধে। যদিও গোষ্ঠীদ্বন্দের বিষয়টি ধামাচাপা দিতে পুলিশের তরফে জানাও হয়, জমি বিবাদ নিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। এই গুলি চালনোর ঘটনায় এ খবর লেখা পর্যন্ত কেউই গ্রেপ্তার হয়নি।

শনিবার রাতে প্রথম ঘটনাটি বাসন্তী থানার পেট্রো কালিতে ঘটে। অভিযোগ বাসন্তীতে এলাকা দখলের জন্য আদি তৃণমূল কর্মীদের উপর লাগাতার হামলা চালিয়ে চলেছে যুব তৃণমূল নেতাকর্মীরা। একতা সিপিএম ছেড়ে তৃণমূলে যোগ দেওয়া রাজ্য তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি, ডায়মন্ড হারবারের সাংসদ তথা রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর ভাইপো অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছের লোক বলে পরিচিত শওকত মোল্লা তৃণমূলে যোগ দেওয়ার পর থেকে এই হামলা চলছে বলে বিরোধী পক্ষের অভিযোগ। এদিনের হামলার ঘটনায় আহত দুজনের মধ্যে একজনের অবস্থা সঙ্কটজনক বলে জানা গিয়েছে।

- Advertisement -

অপরদিকে, বারুইপুরের ঢোলার হাট থানার অন্তর্গত মথুরাপুর-কুলপি ১ নম্বর ব্লকের কিছু তৃণমূল কর্মী যুব তৃণমূল কর্মীদের অত্যাচারে এলাকাছাড়া। রবিবার তাদের এলাকায় ফিরে আসার নিয়ে এক সালিশি সভা ডাকা হয়েছিল। সভা চলাকালীন যুব তৃণমূল কর্মীরা ওই আদি তৃণমূল কর্মীদের উপর গুলি চালালে তিনজন গুলিবিদ্ধ হন। তাদের মধ্যে গুলিবিদ্ধ রফিকুল মিডের অবস্থা সংকটজনক। তাকে কলকাতার হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়েছে।

সুন্দরবন পুলিশ জেলার সুপার বৈভব টিওয়ারি জানান, দুর্ঘটনায় জড়িতদের ধরতে তল্লাশি চালানো হচ্ছে। খুব শীঘ্রই তারা ধরা পড়বে। দুটি জায়গাতেই ব্যাপক উত্তেজনা থাকায় সেখানে কঠোর পুলিশি ব্যবস্থা বলবৎ করা হয়েছে।