পাখির চোখ উপনির্বাচন, ফালাকাটায় জমির পাট্টা দিতে তোড়জোড় তৃণমূলের

496

ফালাকাটা: ফালাকাটা শহরের প্রাণ কেন্দ্র হাটখোলায় জমির সমস্যা দীর্ঘদিনের। বহু বছর থেকে বসবাস করলেও পাঁচ শতাধিক বাসিন্দা এখনও জমির অধিকার পাননি। জেলা পরিষদের হাট ল্যান্ডের জমিতেই বাসিন্দাদের বসবাস। স্থানীয়রা দীর্ঘদিন থেকেই জমির পাট্টার দাবি জানিয়ে আসছেন। আগামী নভেম্বর মাসেই ফালাকাটায় উপনির্বাচন হচ্ছে। এবার হাটখোলার এই সমস্যা সমাধানের ক্ষেত্রে তোড়জোড় শুরু করেছে তৃণমূল কংগ্রেস। শনিবার সন্ধ্যায় হাটখোলার বাসিন্দাদের সঙ্গে এনিয়ে বৈঠক করেন ত্রাণ ও উদ্বাস্তু, পুনর্বাসন দপ্তরের উপদেষ্টা কমিটির চেয়ারম্যান তথা তৃণমূলের জেলা সভাপতি মৃদুল গোস্বামী। তিনি দ্রুত বিষয়টি খতিয়ে দেখার আশ্বাস দিয়েছেন।

ফালাকাটায় গত ২০১৯-র লোকসভা নির্বাচনে বিজেপির থেকে ভোট কম পায় তৃণমূল কংগ্রেস। অথচ ফালাকাটা শহরে তৃণমূল কংগ্রেসের ন’বছরের রাজত্বে অনেক উন্নয়ন হয়েছে। সুপার স্পেশালিটি হাসপাতাল তৈরি হয়েছে। টাউন ক্লাবের মাঠে স্টেডিয়াম ও হাটখোলায় মার্কেট কমপ্লেক্সের কাজ চলছে। কিন্তু তা সত্ত্বেও ফালাকাটার ভোটাররা কেন বিমুখ হয়েছেন, তা নিয়ে তৃণমূল কংগ্রেসের ভিতরে বারবার চর্চা হয়েছে। তবে এক্ষেত্রে ফালাকাটার বাসিন্দাদের পুরসভা ও জমির পাট্টা প্রদানের মত মূল দুটি দাবি আজও পূরণ হয়নি। বামফ্রন্টের ৩৪ বছরের রাজত্বেও এই দাবি দুটি উপেক্ষিত থেকে যায়।

- Advertisement -

সূত্রের খবর, গত লোকসভা নির্বাচনে খারাপ ফলাফলের কারণ বিশ্লেষণ করতে গিয়ে বিষয়টি বুঝতে পারে তৃণমূল কংগ্রেস। তাই দলের ফালাকাটার নেতারা জমির পাট্টার বিষয়টি জেলা ও রাজ্যস্তরে জানান। পাট্টা সংক্রান্ত দপ্তরের রাজ্য কমিটির চেয়ারম্যান হওয়ায় মৃদুল গোস্বামী এব্যাপারে উদ্যোগী হয়ে এদিন বৈঠক করেন।

হাটখোলার বাসিন্দা মিটুন সাহারায় ও নির্মল মহেশ্বরী জানান, জমির নথি না থাকায় হাটখোলার বাসিন্দারা ব্যাংক ঋণ সহ অন্য কোনও সুবিধে পাচ্ছেন না। তাই পাট্টা বা দীর্ঘ মেয়াদি লিজ হিসেবে জমির নথি প্রদানের দাবি তুলেছেন স্থানীয়রা।

এ প্রসঙ্গে মৃদুল গোস্বামী বলেন, ‘কে কত পরিমাণ জমিতে বসবাস করছেন ও জমির বর্তমান চরিত্র কী রয়েছে, এসব খতিয়ে দেখে পদক্ষেপ করা হবে। পুরো তথ্য উল্লেখ করে বাসিন্দাদের আবেদন করতে বলা হয়েছে।’

তৃণমূলের ব্লক সাধারণ সম্পাদক সুভাষ রায় বলেন, ‘জমির পাট্টা প্রদানের ক্ষেত্রে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী আন্তরিকভাবে উদ্যোগী হয়েছেন। তাই ফালাকাটা হাটখোলার এই সমস্যার দ্রুত সমাধান হবে।’