ফালাকাটায় ৩০ জন পর্যবেক্ষক নিয়োগ করল তৃণমূল

594

ফালাকাটা: ফালাকাটায় দলের কোন্দল যাতে আর কোনওভাবে প্রকাশ না পায় সেব্যাপারে সাংগঠনিক রণকৌশল ঠিক করে নিল তৃণমূল কংগ্রেস। আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনের জন্য গোটা ব্লকের ১২টি গ্রাম পঞ্চায়েতে নতুন করে ৩০ জন ব্লক কমিটির প্রতিনিধিকে পর্যবেক্ষক হিসেবে নিয়োগ করা হল। এই পর্যবেক্ষকরা ভোট পর্যন্ত বুথ থেকে অঞ্চল স্তরের সবরকমের সাংগঠনিক কাজ দেখভাল করবেন। সংগঠনের ব্যাপারে নিয়মিত তাঁদেরকে রিপোর্টও দিতে হবে। এদিন তৃণমূলের ফালাকাটা ব্লক স্তরের একটি বৈঠকে পর্যবেক্ষকদের নাম ঘোষণা করা হয়। ওই বৈঠকে প্রতিটি অঞ্চল ধরে ধরে রিপোর্ট সংগ্রহ করেন শীর্ষ নেতারা। এবার থেকে সব স্তরের নেতাকে দলের তরফে বেধে দেওয়া জনসংযোগমূলক কাজে ঝাপিয়ে পড়ার বার্তা দেওয়া হয়। ফেলে রাখা কাজও দ্রুত শেষ করতে বলা হয়। সূত্রের খবর, নিজেদের সংগঠনের ঘাটতি পূরণের পাশাপাশি বিজেপিকে রুখতে তৃণমূল কংগ্রেস ছক কষে ময়দানে নামতে চলেছে।

ফালাকাটায় উপনির্বাচনের সম্ভাবনা থাকায় কয়েক মাস আগেও অঞ্চল ভিত্তিক পর্যবেক্ষক নিয়োগ করেছিল তৃণমূল। তবে দুর্গাপুজোর আগে থেকেই দলের সাংগঠবিক রদবদল ব্যাপকভাবে শুরু হয়। সম্প্রতি একাধিক কমিটি গঠন নিয়ে দলের কোন্দলও প্রকাশ পায়। তাই এবার নতুন করে পর্যবেক্ষক নিয়োগ করা হল। দলীয় সূত্রে খবর, ফালাকাটায় ১২টি গ্রাম পঞ্চায়েতে তৃণমূলের ১৫টি সাংগঠনিক অঞ্চল কমিটি রয়েছে। প্রতিটি অঞ্চল কমিটিতে ব্লক স্তরের দু’জন নেতাকে পর্যবেক্ষকের দায়িত্ব দেওয়া হয়। সব মিলে এই ৩০ জন পর্যবেক্ষক প্রতিনিয়ত বুথ ও অঞ্চল স্তরের সঙ্গে যোগাযোগ রেখে সাংগঠনিক পরিস্থিতি খতিয়ে দেখবেন। কোথাও দলীয় সমস্যা হলে প্রাথমিকভাবে পর্যবেক্ষকদের তা মেটাতে হবে। তাঁরা দলের জনসংযোগমূলক কর্মসূচি ঠিকমত হচ্ছে কী না সেব্যাপারেও নজর রাখবেন। আবার বিজেপির দিকেও পর্যবেক্ষকদের নজর রাখতে হবে।

- Advertisement -

এভাবে কাজ করে নিয়মিত ব্লক স্তরে তাদেরকে সব রিপোর্ট জানাতে হবে। এদিকে, প্রতি দশদিন অন্তর তৃণমূলের ব্লক কোর কমিটির সঙ্গে বৈঠক করবেন দলের তরফে ফালাকাটা বিধানসভা কেন্দ্রের বিশেষ দায়িত্বপ্রাপ্ত রাজ্য নেতা ঋতব্রত বন্দ্যোপাধ্যায়। অঞ্চল স্তরের সমস্যা কীভাবে মেটানো যায় সেই বৈঠকে তা চূড়ান্ত হবে। সূত্রের খবর,এই কৌশলে দলের দ্বন্দ্ব মেটানোর পাশাপাশি বিজেপির বিরুদ্ধে পথে নামার চেষ্টা চালাবে তৃণমূল।

এছাড়াও এদিন ফালাকাটা কমিউনিটি হলে আয়োজিত তৃণমূলের বৈঠকে আগের জনসংযোগমূলক কাজের রিপোর্ট সংগ্রহ করা হয়। ‘দিদির ডায়ারি’র কাজ পুজোর আগে থেকেই ফালাকাটায় চলছে। ৩০ নভেম্বর এই কাজ শেষ করার নির্দেশ রয়েছে। এদিন ঋতব্রত বন্দ্যোপাধ্যায় অঞ্চল ধরে ধরে ওই কাজের অগ্রগতি সম্পর্কে রিপোর্ট সংগ্রহ করেন। আবার আগামী ডিসেম্বর মাস থেকে পিকে’র নির্দেশে জয়ধ্বনি বাংলা, দুয়ারে দুয়ারে সরকার সহ নানা কর্মসূচি শুরু হচ্ছে। এদিন এইসব কর্মসূচিতে সবাইকে ঝাপিয়ে পড়তে নির্দেশ দেওয়া হয়। এদিনের বৈঠকে তৃণমূলের ব্লক কমিটি, কোর কমিটির প্রতিনিধি, ১৫ জন অঞ্চল সভাপতি সহ সব শাখা সংগঠনের পদাধিকারীরা উপস্থিত ছিলেন।

দলের ব্লক সভাপতি সুভাষ রায় বলেন, ‘অঞ্চল ও বুথ স্তরে সবাইকে জোরদারভাবে ঝাপিয়ে পড়ার বার্তা দেওয়া হয়। যেখানে ঘাটতি আছে, তা পূরণ করা হবে। পর্যবেক্ষকরা বুথ ও অঞ্চল স্তরে সব কিছু দেখভাল করবেন। আগামী ডিসেম্বর মাস থেকেই ফালাকাটায় দলের নানা কর্মসূচি শুরু হচ্ছে। সেই বার্তাও এদিন সবাইকে দেওয়া হয়।’

ঋতব্রত বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘ফালাকাটায় দলীয় ক্যালেন্ডার অনুযায়ী কাজ হচ্ছে। এদিনের সাংগঠনিক বৈঠকেও আগামীদিনের ক্যালেন্ডার জানিয়ে দেওয়া হয়। এখন প্রতিদিন ফালাকাটায় দলের কোনও না কোনও কর্মসূচি হবে। প্রতি দশদিন অন্তর ব্লক কোর কমিটির সঙ্গে আমি বৈঠক করব।’