রাজ্যে ক্ষমতায় থেকে তৃণমূল সরকারি আবাসনে নীল-সাদা রং ছাড়া আর কিছুই করেনি, দাবি শংকরের

188

ফাঁসিদেওয়া, ৩১ জানুয়ারিঃ আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনে গোটা রাজ্যের পাশাপাশি, ফাঁসিদেওয়াতেও বাম-কংগ্রেস জোটেই আস্থা রাখবেন। ফাঁসিদেওয়াতে একটি অনুষ্ঠানে এসে এমনটাই দাবি করলেন কংগ্রেসের দার্জিলিং জেলা সভাপতি তথা মাটিগাড়া-নকশালবাড়ির বিধায়ক শংকর মালাকার। একইসঙ্গে রাজ্যের তৃণমূল কংগ্রেস সরকার এবং কেন্দ্রে বিজেপি সরকারকে একহাত নেন কংগ্রেস বিধায়ক৷ শংকর বলেন, ১০ বছর ক্ষমতায় থেকে তৃণমূল সরকার সরকারি আবাসনগুলিকে নীল-সাদা রং করা ছাড়া আর কোনও কাজ করেনি। গোটা রাজ্যে চিকিৎসা ব্যবস্থা বেহাল হয়ে পড়েছে। কোথাও চিকিৎসক নেই, আবার কোথাও চিকিৎসার যন্ত্রপাতি নেই। বেকার সমস্যা মেটেনি। সব জায়গায় সিন্ডিকেটরাজ এবং দখলদারি, চাকরির নামে প্রতারণা ছাড়া আর কিছুই হয়নি বলেই মানুষ এখন এই সরকারের কর্মকাণ্ডে হতাশ। তৃণমূল সরকার এখন যমের দূয়ারে এসে দাঁড়িয়েছে।

অন্যদিকে, কেন্দ্রে বিজেপি সরকারের বিরুদ্ধেও তোপ দাগেন কংগ্রেসের বিধায়ক তথা নেতা। কংগ্রেসের দার্জিলিং জেলা সভাপতি এই প্রসঙ্গে জানান, দেশের সকলকে ১৫ লক্ষ টাকা এবং ২ কোটি বেকারদের চাকরি দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়ে বিজেপি ক্ষমতায় এসেছিল। তবে, ক্ষমতায় আসার ৭ বছরে এখনও পর্যন্ত সেই প্রতিশ্রুতি পূরণ করতে পারেনি। গ্যাসের দাম ৩২০ টাকা থেকে ৭২০ টাকায় পৌঁছেছে। দৈনিক দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধির জেরে মানুষ এখন হাপিয়ে উঠেছে। শংকর আরও জানিয়েছেন, কেন্দ্র সরকার সমস্ত সরকারি লাভজনক সংস্থা বেসরকারি সংস্থার কাছে বিক্রি করে দিচ্ছে। ফলে, দেশের মানুষ আগামীদিনে সমস্যার মুখে পড়বেন বলে তিনি দাবি করেছেন। কংগ্রেস সরকারে না থাকলেও, দরকারে থাকে সেই কারণেই আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনে গোটা রাজ্যের পাশাপাশি, দেশের মানুষ আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনে বাম-কংগ্রেস জোটকেই বিপুল ভোটে জয়ী করবেন বলে কংগ্রেসের বিধায়ক আশাবাদী।

- Advertisement -

দার্জিলিং জেলা তৃণমূল কংগ্রেস সভাপতি রঞ্জন সরকার বলেন, শংকর মালাকার তৃণমূল কংগ্রেসে যোগদান করতে গিয়েছিলেন। ওনাকে নেওয়া হয়নি। অপরদিকে, শংকর মালাকারের দিকে চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দিয়ে রঞ্জন বলেন, মাটিগাড়া-নকশালবাড়িতে দাঁড়িয়ে জিতে দেখান উনি। প্রথমবার তৃণমূলের ভোটেই উনি জিতেছিলেন। তৃণমূল কংগ্রেসের সম্পর্কে নিন্দা করার আগে, কংগ্রেস বিধায়কের লজ্জা হওয়া উচিত বলে কটাক্ষ করেন রঞ্জন। তিনি আরও বলেন, করোনা পরিস্থিতিতে ১১ মাস শংকর বাবু কোথায় ছিলেন, ১০ বছরে বিধায়ক পদে থেকে নিজস্ব তহবিলের টাকায় কি করেছেন মানুষকে সেই জবাব দিন শংকর বাবু। এবারে ওনার জমানতজব্দ হবে বলে দাবি করেছেন তৃণমূল কংগ্রেস নেতা। শিলিগুড়ি সাংগঠনিক জেলা বিজেপি সভাপতি প্রবীণ আগরওয়াল বলেন, কংগ্রেস এখন পর্যন্ত দেশে যে কাজ করেছে তা মানুষ জানেন। তাই কংগ্রেস নেতাদের এই সমস্ত কথায় মানুষ এখন আমল দেয় না। বিজেপি গোটা দেশে সকল প্রকার উন্নয়নমূলক কাজ করে চলেছে। তিনি আরও জানান, বিজেপির কাজকে দেশের মানুষ সমর্থন করছে। আগামীতেও করবেন বলে তিনি আশাবাদী।