হাথরস গণধর্ষণ কাণ্ড ও কেন্দ্রীয় কৃষি আইনের বিরোধিতায় তৃণমূলের আন্দোলন

231

সমীর দাস, কালচিনি: হাথরস গণধর্ষণ কাণ্ড ও কেন্দ্রীয় কৃষি আইনের বিরোধিতায় পথে নামল তৃণমূল কংগ্রেস। ব্লক সভাপতির পদ গ্ৰহণ করে বিজেপির বিরুদ্ধে পথে নামলেন তৃণমূলের কালচিনি ব্লক সভাপতি গণেশ মাহালি। মঙ্গলবার বিকেলে কালচিনি পোস্ট অফিস ময়দান থেকে মিছিল বের হয়। মিছিলটি কালচিনি ও হ্যামিল্টনগঞ্জের বিভিন্ন এলাকা পরিক্রমা করে হ্যামিল্টনগঞ্জ বাস স্ট্যান্ডে গিয়ে শেষ হয়। ব্লক সভাপতি ছাড়াও তৃণমূলের তৃণমূলের জেলা কমিটির তাবড় নেতারা মিছিলে উপস্থিত ছিলেন।

তৃণমূলের তরফে জানানো হয়েছে, উত্তরপ্রদেশের হাথরসে তরুণীকে গণধর্ষণ ও নির্মমভাবে হত্যার প্রতিবাদ জানাতে ও কেন্দ্রীয় কৃষি আইনের বিরোধিতায় লাগাতার আন্দোলনের পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে। তবে তৃণমূল সমর্থকদের একাংশ মনে করছেন, আন্দোলন ছাড়াও জেলা নেতৃত্ব চাইছে ব্লকের নতুন কমিটির নেতাদের সামনে এনে নিজেদের শক্তি পরীক্ষা করার প্রয়াস নেওয়া হয়েছে।

- Advertisement -

এদিন মূলত বিজেপির বিরুদ্ধে আয়োজিত মিছিলের পুরভাগে ছিলেন দলের জেলা সভাপতি মৃদুল গোস্বামী, জেলা কো-অর্ডিনেটর পাসাং লামা, জেলার দায়িত্বপ্রাপ্ত ঋতব্রত বন্দ্যোপাধ্যায়, ব্লক সভাপতি গণেশ মাহালি, প্রাথমিক শিক্ষা সংসদের চেয়ারপার্সন গার্গী নার্জিনারি প্রমুখ। মিছিলটি কালচিনি ও হ্যামিল্টনগঞ্জের বিভিন্ন এলাকা পরিক্রমা করে হ্যামিল্টনগঞ্জ বাস স্ট্যান্ডে গিয়ে শেষ হয়। সেখানে তৃণমূল নেতারা বিজেপির কঠোর সমালোচনা করে বক্তব্য পেশ করেন। বিজেপি শাসিত রাজ্যে নারী সুরক্ষা নিয়ে প্রশ্ম তোলেন তৃণমূল নেতারা। এছাড়াও কেন্দ্রে বিজেপি সরকার কৃষি আইন প্রণয়নের মাধ্যমে দেশকে আগামী দিনে গভীর সংকটের মধ্যে ঠেলে দিচ্ছে বলে অভিযোগ করেন তৃণমূল নেতারা।

দলের জেলা কো-অর্ডিনেটর পাসাং লামা বলেন, ‘আমরা বিজেপির কুশাসনের মুখোশ খুলে দিতে চাই। এর জন্য লাগাতার আন্দোলনের কর্মসূচি নেওয়া হয়েছে। আমরা একযোগে বিজেপির বিরুদ্ধে আন্দোলন করব। তৃণমূলের সৈনিক হিসাবে নিজেদের দায়িত্ব পালন করব আমরা।’