এবার চারা দুর্নীতিতে রাজীবকে বিঁধল তৃণমূল

192

রায়গঞ্জ: রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়ের মন্ত্রীত্বকালে রায়গঞ্জ বনবিভাগে চারা গাছ কেনা নিয়ে দূর্নীতির অভিযোগ উঠল। রাজীবের প্রাক্তন দল তৃণমূল কংগ্রেসের তরফে এই অভিযেগ করা হয়েছে। তৃমূলের দাবি, রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় মন্ত্রী থাকাকালীন উপযুক্ত পরিকাঠামো থাকা সত্বেও রায়গঞ্জ বনবিভাগের বাগানে চারা গাছ তৈরি না করে বেসরকারি নার্সারি সংস্থার কাছ থেকে বিনা টেন্ডারে বেশি দরে গাছ কেনা হয়েছে। শুধু তাই নয় গাছ বিতরণ না করেও কোটি কোটি টাকা তুলে নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে রায়গঞ্জ বনবিভাগের বিরুদ্ধে। ঘটনায় রীতিমতো চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে।

তৃণমূলের জেলা সভাপতি কানাইলাল আগরওয়াল বলেন, ‘বিনা টেন্ডারে কোটি টাকার গাছ বিলি করা হয়েছে। বাস্তবে যেসব জায়গায় গাছ বিলি করার কথা বলা হচ্ছে সেখানে বিলি করা হয়নি। আমি জেলাশাসককে এদিন তদন্ত করতে বলেছি।’ কানাইয়া জানান, কয়েক কোটি টাকায় সবুজশ্রী প্রকল্পের গাছ লাগানোর বরাত দেওয়া হয়েছিল রায়গঞ্জের এক শিল্পপতিকে। তিনি সেই চারাগুলি না বিলি করে টাকা তুলে নিয়েছেন। এই ব্যাপারে মুখ্যমন্ত্রীকেও অভিযোগ করা হয়েছে।’ তার দাবি, প্রায় ১০০ কোটি টাকা তছরুপ করা হয়েছে। এর সঙ্গে জড়িত রয়েছে প্রাপ্তন বনমন্ত্রী রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়।

- Advertisement -

রায়গঞ্জ বিভাগের বন আধিকারিক সোমনাথ সরকার অবশ্য় অনিয়মের ঘটনা পুরোপুরি অস্বীকার করেছেন। উলটে তার বক্তব্য, ‘নির্দেশ মোতাবেক গাছ কেনা হয়েছিল। রায়গঞ্জের এক শিল্পপতি সেই বরাত পেলেও আমরা টাকা পেমেন্ট করিনি।’ যদিও জেলা প্রশাসনের এক কর্তা বলেন, ‘চারাগাছ তৈরির জন্য বন দপ্তরের পর্যাপ্ত পরিকাঠামো রয়েছে, তারপর কেন বাইরের সংস্থা থেকে গাছ কেনার দরকার হল তা নিয়ে তদন্ত করা হচ্ছে।’

বিজেপির জেলা সভাপতি বিশ্বজিৎ লাহিড়ী অবশ্য় বলেন,”যখন রাজিব বন্দ্যোপাধ্যায় তৃণমূলের বনমন্ত্রী ছিলেন তখন কেন তদন্ত করা হয়নি। এখন বিজেপিতে যোগ দিয়েছে তাই পরিকল্পনা করে রাজীববাবুকে ফাঁসানোর চক্রান্ত চলছে।

এদিন উত্তর দিনাজপুর জেলা শাসক অরবিন্দকুমার মিনার কাছে এই বিষয়ে জানতে চাওয়া হলে তিনি কোনও মন্তব্য করতে চাননি।