বহিরাগত ছাত্রের মারে মাথা ফাটল টিএমসিপির ইউনিট সভাপতির

429

সামসী: বহিরাগত ছাত্রের মারে মাথা ফাটল টিএমসিপির এক ছাত্র নেতার। শনিবার দুপুর বারোটা নাগাদ মালদার সামসী কলেজে ঘটনাটি ঘটেছে। ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে এলাকায়। আক্রান্ত ছাত্র নেতার নাম মিসবাহুল আলম জেমস। তিনি সামসী কলেজের ভূগোল অনার্সের প্রথম বর্ষের ছাত্র। পাশাপাশি তিনি সামসী কলেজের টিএমসিপির ইউনিট সভাপতির দায়িত্বেও রয়েছেন। বহিরাগত ছাত্রের মারে কলেজের ছাত্র আক্রান্ত হওয়ায় সামসী কলেজের নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়ে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে। গেটে প্রহরী থাকা সত্ত্বেও কীভাবে বহিরাগত ছাত্র কলেজের ভিতরে প্রবেশ করল, সেটা নিয়েও প্রশ্ন উঠেছে। ঘটনার প্রতিবাদে কলেজে এদিন ধর্নায় বসেন টিএমসিপির সদস্যরা। পুলিশে অভিযোগ জানানো হয়েছে। তদন্ত শুরু হয়েছে।

মিসবাহুল আলম জেমসের অভিযোগ, ‘অফিসের সামনে ছাত্রছাত্রীদের লাইন ঠিক করছিলাম। সেসময় দেখি, কলেজের প্রাক্তন ছাত্র হারুন আল রশিদ কিছু মেয়েকে ইভটিজিং করছেন। তাঁকে বারণ করা হলে হারুন লোহার রড নিয়ে আমার ওপর আক্রমণ করেন। পরে সেখান থেকে তিনি চম্পট দেন।’ ঘটনার পর কলেজের অন্য ছাত্ররা মিসবাহুলকে সামসী গ্রামীণ হাসপাতালে নিয়ে যান। তাঁর ওপর আক্রমণের প্রতিবাদে এদিন টিএমসিপির তরফে সামসী কলেজ গেটে বিক্ষোভ  দেখানো হয়। আধ ঘন্টা চলে বিক্ষোভ।

- Advertisement -

টিএমসিপির জেলা সভাপতি প্রসূন রায় বলেন, ‘বিষয়টি কলেজের টিআইসিকে দেখতে বলা হয়েছে। পুলিশকেও জানানো হয়েছে।’

সামসী কলেজের টিআইসি তাপস বর্মন বলেন, ‘কলেজের এক ছাত্রকে অপর এক বহিরাগত ছাত্র মেরেছে। এটা কাম্য ছিল না। বিষয়টি গুরুত্ব সহকারে দেখা হচ্ছে। কলেজে কীভাবে বহিরাগত ছাত্র প্রবেশ করল,  সেব্যাপারে কলেজের গেটের দায়িত্বে থাকা প্রহরীর কাছে কৈফয়েৎ তলব করা হবে।’

চাঁচলের এসডিপিও শুভেন্দু মণ্ডল বলেন, ‘ঘটনাটি শুনেছি। অভিযোগপত্র খতিয়ে দেখে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’