করোনাকালে দিশা দেখাবে অলিম্পিক, আশাবাদী কো

টোকিও : করোনাকালে টোকিও অলিম্পিক আয়োজন করার বিপক্ষে জাপানের নাগরিকদের একটা বড় অংশ। যদিও বিশ্ব অ্যাথলেটিক্স ফেডারেশনের প্রধান তথা প্রাক্তন অলিম্পিয়ান সেবাস্টিয়ান কো মনে করছেন, টোকিও গেমস পরবর্তীতে আশার প্রতীক হয়ে উঠবে। অ্যাথলেটিক্সের একটি অলিম্পিক টেস্ট ইভেন্টে যোগ দিতে আপাতত জাপানে কো। রবিবার টোকিওর ন্যাশনাল স্টেডিয়ামে ওই টেস্ট ইভেন্ট চলাকালীন বাইরে শতাধিক নাগরিক অলিম্পিক আয়োজনের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানিয়েছেন।

বিদেশিদের মাধ্যমে করোনা সংক্রমণ ছড়াবে, এই আশঙ্কায় গেমসের বিরোধিতা করছেন জাপানের নাগরিকরা। যদিও ইতিমধ্যে আয়োজকরা জানিয়েছেন, কোনও বিদেশি দর্শককে ছাড়পত্র দেওয়া হবে না। চূড়ান্ত না হলেও স্থানীয় দর্শকদের ক্ষেত্রে একই সিদ্ধান্ত নেওয়া হতে পারে। তবে তাতেও সন্তুষ্ট নন জাপানীরা। সম্প্রতি অলিম্পিক বন্ধে চালু হওয়া এক অনলাইন ক্যাম্পেনে তিন লক্ষেরও বেশি সই হয়েছে। যদিও এ প্রসঙ্গে কো বলেন, আমার মতে, টোকিও গেমস ভবিষ্যতে আশার প্রতীক হয়ে উঠবে। করোনাকে হারিয়ে ফের স্বাভাবিক জীবনযাপনের ক্ষেত্রে এই প্রতিযোগিতা আমাদের পথ দেখাবে। বর্তমান পরিস্থিতির নিরিখে শুধু জাপান নয়, গোটা বিশ্বের উপর গেমসের দীর্ঘমেয়াদী প্রভাব পড়বে।

- Advertisement -

২০০ দেশের দশ হাজারেরও বেশি অ্যাথলিট গেমসে অংশ নেবেন। এই সময়ে এত বিদেশি জাপানে আসুক, চাইছেন না জাপানের চিকিৎসকদের একাংশও। তাঁদের দাবি, দেশে টিকাকরণের গতি বেশ স্লথ। ফলে অলিম্পিকের আগে বেশি নাগরিককে টিকা দেওয়া যাবে না, যা করোনা রুখতে সমস্যা তৈরি করবে। যদিও কোর বক্তব্য, এখন সকলেই করোনা সংক্রান্ত বিভিন্ন বিধি মেনে চলার বিষয়ে সচেতন। আমার মনে হয় না বাইরে থেকে আসা কোনও অ্যাথলিট বা ফেডারেশন নিয়ম ভাঙবে। সংক্রমণ ঠেকাতে সকলেই দায়িত্বশীল আচরণ করবে। সংক্রমণ এড়াতে চলতি সপ্তাহেও জাপানের বিভিন্ন এলাকায় নতুন করে জরুরী অবস্থা জারি করা হয়েছে।