সূচি নিয়ে বিশৃঙ্খলা তুঙ্গে, হতাশ জাপানের মানুষ

370

লন্ডন ও টোকিও : করোনার আক্রমণ এড়াতে জুলাই-অগাস্টে অনুষ্ঠেয় অলিম্পিক গেমস একবছর পিছিয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে আন্তর্জাতিক অলিম্পিক কমিটি (আইওসি) ও জাপান সরকার। এর ফলে আন্তর্জাতিক ক্রীড়াক্ষেত্রে আগামী কয়েকবছর বিভিন্ন খেলার সূচি নিয়ে যে চরম বিশৃঙ্খলা দেখা দেবে বলে আশঙ্কা করা হয়েছিল, তা ইতিমধ্যে সত্যি বলে প্রমাণিত হতে শুরু করেছে। প্রথমেই বিপদে পড়ে গিয়েছে বিশ্ব অ্যাথলেটিক্স, যা ২০২১ সালের অগাস্ট মাসে আমেরিকার ইউজিন শহরে অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা।

অথচ নতুন সূচি অনুযায়ী ওই সময় টোকিওতে হতে পারে অলিম্পিক। বিশ্ব অ্যাথলেটিক্স ফেডারেশনের সভাপতি সেবাস্তিয়ান কো জানাচ্ছেন, তাঁরা ইতিমধ্যে ইউজিনের সংগঠকদের সঙ্গে কথাবার্তা শুরু করেছেন। তিনি বলেন, আমাদের সবাইকে নমনীয় হতে হবে। সমস্যা আসবে এবং সেই সমস্যাগুলির সমাধান করা মোটেই সহজ ব্যাপার হবে না। দরকার হলে বিশ্ব অ্যাথলেটিক্স পিছিয়ে ২০২২ সালে করতে হবে। আমি ইতিমধ্যে আইওসিকে এই ব্যাপারে চিঠি লিখেছি। আমাদের কাউন্সিল সদস্যদের সঙ্গে কথাও বলতে শুরু করেছি। তবে যা হয়েছে, ঠিক হয়েছে বলে আমি মনে করি। অলিম্পিকের একটা অন্য দাম আছে। এই মুহূর্তে অ্যাথলিটরা যে মানসিক অবস্থায় আছে, তার মধ্যে টোকিওয় গিয়ে মোটেই ভালো কিছু করতে পারত বলে আমার মনে হয় না।

- Advertisement -

অন্যদিকে অলিম্পিক পিছিযে যাওয়ায় যেখানে সারা বিশ্বের ক্রীড়ামহল স্বস্তির নিশ্বাস ফেলেছে, সেখানে হতাশা ব্যক্ত করেছেন জাপানের অনেকেই। আসলে জাপানের অনেক মানুষ আশা করেছিলেন সুনামি, ভূমিকম্প ইত্যাদির পর এই অলিম্পিকই হবে তাঁদের দেশের ঘুরে দাঁড়ানোর লড়াই। কিন্তু সেটাও একবছর পিছিয়ে যাওয়ায় হতাশা গ্রাস করেছে তাঁদের। টোজিও শিমবুন নামের বিখ্যাত কাগজ বলেছে, এই সিদ্ধান্তে তারা অবাক এবং বিব্রত। তবে তারা স্বীকার করতে বাধ্য হয়েছে জাপান সরকারের এর চেয়ে বেশি আর কিছু করার ছিল না।

আইওসিকে দোষারোপ করে এই কাগজটি বলেছে, তারা সপ্তাহের পর সপ্তাহ পুরো ব্যাপারটাকে যেভাবে ঝুলিয়ে রেখেছিল, তা মোটেই কাম্য ছিল না। এটাই প্রমাণ হয়ে গেল যে সত্যিকারের নেতৃত্বের খুব অভাব দেখা দিয়েছে। দেশের অ্যাথলিটদের অনেকে অবশ্য বলেছেন, তাঁরা হতাশ হলেও পরের বছরের জন্য তৈরি হবেন। ৩০ বছর বয়স্ক টেবিল টেনিস খেলোয়াড় জুন মিজুতানি এর আগে তিনটি অলিম্পিকে অংশগ্রহণ করেছেন। তিনি হালকা সুরে টুইট করে বলেছেন আশা করি এবারেও পারব।