বন্ধ জঙ্গল সাফারি, পর্যটন ব্যবসায় ক্ষতির আশঙ্কা

82

সোনাপুর: করোনা অতিমারির প্রভাবে বিপর্যস্ত জনজীবন। বিশেষ করে ছোট ব্যবসায়ী এবং দৈনিক মজুরির বিনিময়ে কাজ করা শ্রমিকরা এই সময় সব থেকে বেশি কোণঠাসা হয়ে পড়েছেন। উত্তরবঙ্গ তথা ডুয়ার্সজুড়ে চা শিল্পের সঙ্গে সব থেকে বেশি লোক যুক্ত। তার পরবর্তী নাম আসে পর্যটন শিল্পের। পর্যটন শিল্পে বিভিন্ন জায়গায় প্রধান গুরুত্ব পায় জঙ্গলে কার সাফারি এবং হাতি সাফারির জন্য। গতবছর করোনাকাল থেকেই হাতি সাফারি বন্ধ। আলিপুরদুয়ার জেলার চিলাপাতা পর্যটনের প্রধান আকর্ষণ কার সাফারি। গতবছর লকডাউনের পর অক্টোবর মাস নাগাদ কার সাফারি চালু হয়। তবে করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে আবার অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ হয়ে গিয়েছে জঙ্গলে কার সাফারি। এতেই বড় সমস্যায় পড়েছেন গোটা পর্যটন শিল্পে যুক্ত লোকেরাই।

চিলাপাতা জিপসি ওনার্স অ্যান্ড গাইড অ্যাসোসিয়েশনের সম্পাদক বিমল রাভা জানান, অনেকেই কিস্তিতে জিপসি কিনেছেন। সেই টাকা শোধ কিভাবে হবে সেটা বোঝা যাচ্ছে না। গাইডদের অন্য কিছু করার নেই। তাঁদের সংসার চালানো কঠিন হয়ে দাঁড়িয়েছে।

- Advertisement -

চিলাপাতা ইকো ট্যুরিজম সোসাইটির আহ্বায়ক অভিক গুপ্ত বলেন, ‘জঙ্গল সাফারি বন্ধ। এরপর ১৫ জুন থেকে বর্ষার জন্য এমনিতেই তিন মাস জঙ্গল বন্ধ থাকবে। এমন পরিস্থিতিতে এই ব্যবসা পুরোটাই ভেঙে পড়বে। এত লোকের রোজগার আটকে যাচ্ছে। আমরা সরকারের কাছে আবেদন জানাচ্ছি পর্যটন ব্যবসা যাতে টিকে থাকতে পারে সেই রকম কোনও আর্থিক সাহায্য এবং পরিকাঠামো করা হোক।’