ম্যানেজার বদলির দাবিতে আন্দোলনে সরকারি টুরিস্ট কমপ্লেক্সের কর্মীরা

598

চালসা: সরকারি টুরিস্ট কমপ্লেক্সের ম্যানেজারের বিরুদ্ধে অভব্য আচরণের অভিযোগে সরব হলেন টুরিস্ট কমপ্লেক্সের কর্মীরা। ওই ম্যানেজারের বদলি সহ নানা দাবিতে বুধবার বিক্ষোভ দেখান মেটেলি ব্লকের পর্যটন দপ্তরের মূর্তি টুরিস্ট কমপ্লেক্সের ২৮ জন কর্মী। কমপ্লেক্সের গেটে তালা মেরে বিক্ষোভ দেখান তাঁরা। খবর পেয়ে ম্যানেজার গৌরী ঘোষ কমপ্লেক্সে এলে তাঁকে ভিতরে ঢুকতে দেননি বিক্ষোভকারীরা। বাধ্য হয়ে সেখান থেকে চলে যান ম্যানেজার। সেখানে পৌঁছান স্থানীয় গ্রাম পঞ্চায়েত সদস্য বাপন রায়।

বিক্ষোভকারী কর্মীরা জানান, প্রায় বছর দুয়েক আগে গৌরী ঘোষ মূর্তি টুরিস্ট কমপ্লেক্সের ম্যানেজারের দায়িত্ব নেন। তারপর থেকেই তিনি কর্মীদের সঙ্গে অভব্য আচরণ করছেন বলে অভিযোগ। কথায় কথায় কর্মীদের অভব্য ভাষায় গালিগালাজ করেন। সামান্য ভুলে কর্মীদের সাসপেন্ড করে দিচ্ছেন। অন্য কমপ্লেক্সে বদলি করার হুমকিও দিচ্ছেন। বাধ্য হয়ে এদিন কমপ্লেক্সের সকল কর্মী ম্যানেজারের বদলির দাবিতে আন্দোলনে শামিল হন। ওই ম্যানেজারের তথ্যাবধানে কর্মীরা কাজ করবে না বলেও দাবি উঠেছে।

- Advertisement -

যদিও যাবতীয় অভিযোগ অস্বীকার করেছেন ম্যানেজার গৌরী ঘোষ। এদিন ঘটনার খবর পেয়ে কমপ্লেক্সে আসে জলদাপাড়া টুরিস্ট কমপ্লেক্সের ম্যানেজার নিরঞ্জন সাহা, মাল টুরিস্ট কমপ্লেক্সের ম্যানেজার উমেশ সিং ও বাতাবাড়ি টুরিস্ট কমপ্লেক্সের ম্যানেজার নিতেন সরকার সহ পঞ্চায়েত সদস্য বাপন রায়, মোস্তাফি রহমান প্রমুখ। তাঁরা এসে দীর্ঘক্ষণ বিক্ষোভকারীদের সঙ্গে আলোচনা করেন। আলোচনার পর দুপুর প্রায় ১টা নাগাদ কর্মীরা গেটের তালা খুলে দেন।

গ্রাম পঞ্চায়েতের সদস্য বাপন রায় বলেন, ‘ঘটনার খবর পেয়ে এলাকায় আসি। ম্যানেজারের বিরুদ্ধে একাধিক অভিযোগ করেন কর্মীরা। বিষয়টি দলীয় নেতৃত্ব সহ পর্যটন মন্ত্রীকে জানানো হবে।’

জলদাপাড়া টুরিস্ট কমপ্লেক্সের ম্যানেজার নিরঞ্জন সাহা বলেন, ‘আগামী ২৬ সেপ্টেম্বর যাবতীয় বিষয়ে সকলের সঙ্গে আলোচনা করা হবে। আলোচনার পর সমস্যার সাময়িক সমাধান হয়। আন্দোলনকারীরা তাঁদের আন্দোলন তুলে নেন।’