লকডাউন এফেক্ট: রোজগার বন্ধে অর্ধাহারে উত্তরের রূপান্তরকামীরা

370

শিলিগুড়ি: করোনা সংক্রমণ ঠেকাতে দেশজুড়ে ধাপে ধাপে বাড়ানো হচ্ছে লকডাউন। তার জেরে দীর্ঘদিন বন্ধ রয়েছে ট্রেন চলাচল। এমনকী গ্রামের হাটবাজারে যাত্রা-বিনোদন প্রদর্শনও বন্ধ। এরফলে অন্য সাধারণ দিন আনা দিন খাওয়া মানুষের মতো সমস্যায় পড়েছেন রুপান্তরকামীরাও। তাই প্রশাসন থেকে শুরু করে সমাজের সমস্ত স্তরের মানুষের কাছে সাহায্যের আবেদন জানাচ্ছেন তাঁরা।

জানা গেছে, শিলিগুড়ির রুপান্তরকর্মীদের রোজগার হয় মূলত ট্রেনে। তাঁরা ট্রেনের যাত্রীদের কাছ থেকে পাওয়া অর্থে দিন গুজরান করেন। কেউ কেউ যৌনকর্মী হিসাবেও কাজ করেন। এদের মধ্যে কেউ কেউ ভিন রাজ্যে বিয়ের অনুষ্ঠানে নাচ করতে যান। অনেকে আবার অবসর সময়ে প্রত্যন্ত গ্রামের হাটে বা বাজারে নাচ-গান করে সামান্য রোজগার করেন। কিন্তু, করোনা সাবধানতার জেরে টানা এক মাসের বেশি সময় হাট, ট্রেন চলাচল বন্ধ থাকায় আয়ও বন্ধ রূপান্তরকর্মীদের।

- Advertisement -

শিলিগুড়ি পুরসভা এলাকার দুই রূপান্তরকর্মী পিঙ্কি সরকার ও প্রবীর ঘোষ বলেন, ‘করোনা সংক্রমণের জেরে লকডাউন হয়েছে। দূরপাল্লার ট্রেন বন্ধ। ফলে আমাদের আয় বন্ধ হয়েছে। কবে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হবে কেউ জানে না। দু’বেলা খাবারের বন্দোবস্ত নিয়ে বিপাকে পড়েছি আমরা। দিন কয়েক আগে রাজ্য সরকার থেকে খাদ্য সামগ্রীর ব্যবস্থা করা হয়েছিল। কোনও মতে সেই চাল-ডাল-আলু পেয়ে আধপেটা খেয়ে বেঁচে আছি। এই ভাবে চলতে থাকলে না খেয়ে মরতে হবে আমাদের। তাই, সাহায্যের জন্য অনেককেই বলেছি কিন্তু, আশ্বাস ছাড়া কিছু পায়নি।

পিঙ্কি সরকারের অভিযোগ,দিন দশেক আগে পর্যটন মন্ত্রী গৌতম দেবের সঙ্গে ফোনে যোগাযোগ করা হলে সাহায্য করবেন বলে জানিয়েছিলেন। কিন্তু,তাঁর তরফে এখনও কোনও সাহায্য পায়নি আমরা। এমনকি তাঁরপর থেকে গৌতম বাবুকে ফোন করা হলে উনি ফোন তুলছেন না। হোয়াটসঅ্যাপেরও উত্তর দিচ্ছেন না বলে জানান পিঙ্কি সরকার। তাই সমাজের সমস্ত স্তরের মানুষের কাছে সাহায্য চেয়ে উত্তরবঙ্গ সংবাদকে নিজেদের মোবাইল নম্বর দিয়ে প্রকাশের আবেদন জানান। পিঙ্কি সরকার, প্রবীর ঘোষেদের মতো উত্তরবঙ্গের একশোর বেশি রুপান্তরকামীর সাহায্যের জন্য পিঙ্কি সরকার- 7432933955,প্রবীর ঘোষ- 9614597329 নম্বর যোগাযোগ করার আবেদন জানিয়েছেন তাঁরা।