জাতীয় সড়কের পাশ থেকে অভিনব কায়দায় গাছ চুরি

295

শুভদীপ শর্মা, ময়নাগুড়ি : জাতীয় সড়কের পাশ থেকে অভিনব কায়দায় দেদার গাছ চুরি চলছে। ময়নাগুড়ি-মালবাজারগামী ৩১ নম্বর জাতীয় সড়কের পাশে থাকা বহু গাছ চুরি হতে থাকলেও বন দপ্তর কোনও উদ্যোগ নিচ্ছে না বলে অভিযোগ। বিষয়টি নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন পরিবেশপ্রেমীরা। তবে চুরি বন্ধে উপযুক্ত ব্যবস্থা গ্রহণের আশ্বাস দিয়েছে বন দপ্তর।

বছর কয়েক আগে ময়নাগুড়ি-মালবাজারগামী ৩১ নম্বর জাতীয় সড়কে ময়নাগুড়ি দোমোহনি মোড় থেকে লক্ষ্মীরহাট পর্যন্ত দীর্ঘ কয়েক কিলোমিটার রাস্তার দুপাশে বন দপ্তরের সামাজিক বনসৃজন প্রকল্পে কয়েক হাজার গাছ লাগানো হয়। প্রথম অবস্থায় ওই গাছগুলি দেখভালের দায়িত্ব দেওয়া হয় স্থানীয় গ্রাম পঞ্চায়েতকে। পঞ্চায়েতের রক্ষণাবেক্ষণে কয়েক বছর পর ছোট ছোট সেই গাছগুলি আজ মহীরুহে পরিণত হয়েছে। আর গাছ বড় হতেই  সেগুলির উপর নজর পড়েছে দুষ্কৃতীদের। অভিনব কায়দায় দিনের পর দিন গাছগুলো কেটে নিয়ে যাচ্ছে দুষ্কৃতীরা। দুষ্কৃতীরা প্রথমে রাস্তার পাশে থাকা ওই গাছগুলির গোড়ার অংশের চারপাশ কিছুটা করে কেটে রাখছে। যার ফলে সামান্য হাওয়াতেই গোড়া কেটে রাখা ওই গাছগুলি পড়ে যাচ্ছে। অনেক সময় গাছের গোড়া কেটে রাখায় মরেও যাচ্ছে অনেক গাছ। তখনই দুষ্কৃতীরা এসে গাছগুলি নিয়ে যাচ্ছে। অভিযোগ, দিনেরবেলা প্রকাশ্যে এইভাবে গাছ চুরি চললেও প্রশাসন কোনও উদ্যোগ নিচ্ছে না। ময়নাগুড়ি রোড পরিবেশপ্রেমী সংগঠনের সম্পাদক নন্দু রায় বলেন, বিশ্ব উষ্ণায়ন ও পরিবেশ দূষণ রোধে চারিদিকে যখন গাছ লাগাবার কথা চলছে, ঠিক সেই মুহূর্তে এইভাবে প্রকাশ্যে গাছ চুরি কিছুতেই মেনে নেওয়া যায় না। অবৈধভাবে চলতে থাকা গাছ কাটা বন্ধ করতে প্রয়োজনে লাগাতার নজরদারি চালানো হবে বলে জানান নন্দবাবু। পাশাপাশি, গাছ চুরির কাজে যুক্তদের উপযুক্ত শাস্তির দাবি জানান তিনি। স্থানীয় দোমোহনি-১ নম্বর গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান সুপর্ণা রায়শীল বলেন, কারা এই অবৈধ কাজ করে চলেছেন, জানা নেই। তবে অপরাধীদের খুঁজতে বন দপ্তরকে সাহায্য করার আশ্বাস দিয়েছেন তিনি। সামাজিক বনসৃজন দপ্তরের জলপাইগুড়ি বনাধিকারিক কুণাল বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, আমরা এই গাছগুলো লাগিয়েছিলাম ঠিকই, তবে বর্তমানে এগুলো দেখার দায়িত্ব স্থানীয় বনবিভাগের। স্থানীয় রেঞ্জের রেঞ্জারের সঙ্গে কথা বলে গাছ কাটা আটকাতে উপযুক্ত ব্যবস্থা গ্রহণের আশ্বাস দেন কুণালবাবু। এ বিষয়ে লাটাগুড়ির রেঞ্জার শুভ্রশঙ্খ দত্ত বলেন, জাতীয় সড়কের পাশ থেকে গাছ চুরির ঘটনা জানা নেই। খোঁজ নিয়ে গাছ চুরি বন্ধে উপযুক্ত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

- Advertisement -