ধর্ষণকারীর গ্রেপ্তারের দাবিতে থানা ঘেরাও তৃণমূলের

298

আসানসোল: মানসিক ভারসাম্যহীন যুবতীকে ধর্ষণের পরেও বহাল তবিয়েতে বাইরে ঘুরে বেড়াচ্ছে অভিযুক্ত। অভিযুক্ত গ্রেপ্তার না হওয়ায় পুলিশের বিরুদ্ধে সরাসরি আন্দোলনে নামল তৃণমূল যুব কংগ্রেস। তৃণমূল যুব কংগ্রেসের রাজ্য সাধারণ সম্পাদক বিশ্বজিত চট্টোপাধ্যায়ের নেতৃত্বে শনিবার কুলটি থানায় ধর্না অবস্থান করে বিক্ষোভ দেখালেন তৃণমূল যুব কংগ্রেসের কর্মীরা। কোলে দু’মাসের শিশুকন্যাকে নিয়ে সেখানে হাজির ছিলেন নির্যাতিতা যুবতীও।

অভিযোগ, আসানসোলের কুলটি থানার লছমনপুরের বাসিন্দা মানসিক প্রতিবন্ধী অঞ্জনা বাদ্যকরকে বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে দিনের পর দিন ধর্ষণ করেছে স্থানীয় যুবক গোবিন্দ বাউরি। কিন্তু গোবিন্দ ও তার পরিবারের সদস্যরা এখন অঞ্জনাকে বধূ হিসাবে মেনে নিচ্ছেন না। গত এপ্রিল মাসে কুলটি থানায় অভিযোগ দায়েরের পরেও অভিযুক্ত গ্রেপ্তার হয়নি। পুলিশের তরফে করোনা ও লকডাউনের অজুহাত দেখানো হয়েছিল বলে অভিযোগ।

- Advertisement -

এদিকে গত জুলাই মাসে ওই যুবতী এক কন্যা সন্তানের জন্ম দেয়। এরপরেও অভিযুক্ত গোবিন্দকে পুলিশ গ্রেপ্তার করেনি। অভিযুক্তকে গ্রেপ্তারের দাবিতে শনিবার কুলটি থানার বাইরে ধর্নায় বসেন তৃণমূল যুব কংগ্রেসের নেতা ও কর্মীরা। তৃণমূল যুব কংগ্রেসের এই আন্দোলনের পাশে দাঁড়ায় কুলটি ব্লক তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি তথা প্রাক্তন পুরচেয়ারম্যান বিমান আচার্য্য, জেলা তৃণমূল সহ সভাপতি তথা পুরসভার প্রাক্তন ভাইস চেয়ারম্যান পূর্ণেন্দু রায়, জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের নেতা সূজিত রায় ও পুর কাউন্সিলররা।

রাজ্য তৃণমূল যুব কংগ্রেসের সম্পাদক বিশ্বজিত চট্টোপাধ্যায় বলেন, কুলটি পুলিশের এই ভূমিকা নিন্দাজনক। হুঁশিয়ারি দিয়ে তিনি বলেন, দোষীকে অবিলম্বে গ্রেপ্তার না করা হলে বৃহত্তর আন্দোলনে নামা হবে। আসানসোল দুর্গাপুর পুলিশের ডিসিপি(পশ্চিম) অনমিত্র দাস বলেন, অভিযুক্তের সন্ধানে পুলিশ বেশ কয়েকবার লছমনপুরে অভিযান চালিয়েছে। অভিযুক্ত ফেরার রয়েছে।