ঝাড়গ্রামে তৃণমূল-বিজেপি সংঘর্ষ, মৃত্যু তৃণমূল কর্মীর

90

ঝাড়গ্রাম: বিধানসভা ভোট যত এগিয়ে আসছে ততই যেন রাজনৈতিক হিংসা বাড়ছে। রবিবার সন্ধ্যায় ঝাড়গ্রামের নেতুরা বাস স্ট্যান্ডের কাছে তৃণমুল-বিজেপি কর্মীদের মধ্যে সংঘর্ষে মৃত্যু হয়েছে এক তৃণমূল কর্মীর। নিহত তৃণমূল কর্মীর নাম দুর্গা সোরেন (৫০)। তিনি ঝাড়গ্রামের ১৩ নম্বর আগুইবনি গ্রাম পঞ্চায়েতের তৃণমূলের অঞ্চল কমিটির সদস্য ছিলেন। ঘটনার জেরে এলাকায় ব্যাপক উত্তেজনা ছড়িয়েছে। অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে এলাকায় কেন্দ্রীয় বাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, নেতুরা বাস স্ট্যান্ডে তৃণমূল-বিজেপি দু’পক্ষের বচসা শুরু হয়। বচসা ক্রমে সংঘর্ষের রূপ নেয়। দু’পক্ষই একে আপরকে লক্ষ্য করে পাথর ছুঁড়তে থাকে। স্থানীয় বাসিন্দারা পুলিশে খবর দেন। পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছোলে দু’পক্ষের লোকজন পালিয়ে যান। ঘটনার বেশ কিছুক্ষণ পর রাস্তার পাশে এক জমি থেকে তৃণমূল কর্মী দুর্গা সোরেনের দেহ উদ্ধার হয়। ঝাড়গ্রামে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে কর্তব্যরত চিকি‍ৎসকরা তাঁকে মৃত বলে ঘোষণা করেন।

- Advertisement -

ঝাড়গ্রাম জেলা তৃণমূলের সভাপতি দুলাল মুর্মুর দাবি, সংঘর্ষের কোনও ঘটনা ঘটেনি। বিজেপি আশ্রিত দুষ্কৃতীরা পরিকল্পিতভাবে দুর্গা সোরেনকে খুন করেছে। বিজেপির পায়ের তলা থেকে মাটি সরে যাচ্ছে বুঝতে পেরেই এলাকায় ভয়ের পরিবেশ তৈরি করতে সন্ত্রাস চালাচ্ছে তারা। তবে এই অভিযোগ অস্বীকার করেছে স্থানীয় বিজেপি নেতৃত্ব। তাঁদের দাবি, মানিক সাউ নামে তাঁদের এক বিজেপি কর্মীও গুরুতর জখম হয়ে বর্তমানে ঝাড়গ্রাম জেলা সুপার স্পেশালিট হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন। ঘটনার পরই ঝাড়গ্রাম হাসপাতাল চত্ত্বরে ও নেতুরায় বিশাল পুলিশ বাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে। ঘটনার তদন্ত চলছে।