মাথাভাঙ্গার উনিশবিশায় তৃণমূল-বিজেপির কর্মসূচি, শিকেয় উঠল সামাজিক দূরত্ব

ঘোকসাডাঙ্গা: একদিকে তৃণমূল কংগ্রেস স্মরণসভা, পাশাপাশি বিজেপির নানা দাবিতে প্রধানকে ডেপুটেশন প্রদান কর্মসূচি- একই সময়ে একই স্থানে শাসক-বিরোধী দুই রাজনৈতিক দলের কর্মসূচিকে কেন্দ্র করে রাজনৈতিক উত্তাপ মাথাভাঙ্গায়।

সোমবার মাথাভাঙ্গা-২ ব্লকের উনিশবিশা গ্রাম পঞ্চায়েতে চত্বরে আগে থেকেই মোতায়েন ছিল বিশাল পুলিশ বাহিনী। মাথাভাঙ্গার এসডিপিও শুভেন্দু মণ্ডলও এলাকায় ছিলেন।

- Advertisement -

সামাজিক দূরত্ব শিকেয় তুলে এদিন দুই দলের দুই কর্মসূচি পালিত হল। এর ফলে সংক্রমণ ছড়ানোর আশঙ্কা থাকছেই। এবিষয়ে তৃণমূল নেতা মাধব বর্মন জানান, তারা তাঁদের স্মরণসভা সামাজিক দূরত্ব মেনেই পালন করেছেন। বিজেপি নেতাও একই দাবি করেছেন। তবে ভিডিও বা ছবিতে কিন্তু দেখা গেল ঠিক তার উলটো চিত্র।

সম্প্রতি লাদাখ সীমান্তে শহিদ জওয়ানদের শ্রদ্ধা জানাতে এদিন তৃণমূল কংগ্রেসের উনিশবিশা অঞ্চল কমিটির পক্ষে গ্রাম পঞ্চায়েত কার্যালয় সংলগ্ন দলীয় কার্যালয়ে স্মরণসভার আয়োজন করা হয়। গ্রাম পঞ্চায়েতের বিভিন্ন এলাকার কর্মী সমর্থকরা মিছিল উপস্থিত হন সেই স্মরণসভায়।

ঠিক একই সময়ে বিজেপির উনিশবিশা অঞ্চল কমিটির ডাকে অঞ্চলের বিভিন্ন এলাকার বিজেপির কর্মী সমর্থকরা হাতে নানা প্ল্যাকার্ড, দলীয় ঝান্ডা নিয়ে মিছিল করে গ্রাম পঞ্চায়েত কার্যালয়ের অভিমুখে আসতে শুরু করেন।

একই সময়ে একই স্থানে দুই রাজনৈতিক দলের কর্মসূচি, তাই সেই স্থানে বিশাল পুলিশ বাহিনী নিয়ে উপস্থিত ছিলেন মাথাভাঙ্গার এসডিপিও শুভেন্দু মণ্ডল, সিআই পঙ্কজ সাহু, ঘোকসাডাঙ্গা থানার ওসি দেবাশিষ রায় সহ পুলিশকর্মীরা।

গ্রাম পঞ্চায়েত কার্যালয়ের সামনে বিজেপি কর্মীরা অবস্থান বিক্ষোভ করেন। তাঁদের এক প্রতিনিধি দল বিশাল পুলিশ বাহিনীর উপস্থিতিতে গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধানকে স্মারকলিপি প্রদান করেন।

এপ্রসঙ্গে বিজেপি নেতা সুশীল বর্মন বলেন, ভিনরাজ্য থেকে আসা পরিযায়ী শ্রমিকদের জবকার্ড তৈরি করে ১০০ দিনের কাজ প্রদান, জবকার্ডহীনদের জবকার্ড প্রদান, কাজ দেওয়ার ক্ষেত্রে দলবাজি বন্ধ, জলনিকাশি ব্যবস্থার উন্নতি সহ ১৪ দফা দাবিতে গন অবস্থান ও ডেপুটেশন কর্মসূচি পালন করা হয়। প্রধান দাবিগুলো গুরুত্ব দিয়ে বিবেচনা করে ব্যবস্থা গ্রহণের আশ্বাস দিয়েছেন। এই কর্মসূচি পূর্ব নির্ধারিত ছিল বলে জানান তিনি।

এপ্রসঙ্গে তৃণমূল কংগ্রেসের নেতা মাধব বর্মন বলেন, বীর শহীদদের শ্রদ্ধা জানাতে স্মরণসভার আয়োজন করা হয়। আমাদের কর্মসূচিও পূর্ব নির্ধারিত ছিল। অন্য কোনও রাজনৈতিক দল কী কর্মসূচি পালন করল, তাতে আমাদের কিছু যায় আসে না। আমাদের কর্মসূচি নির্বিঘ্নেই শেষ হয়েছে।

এব্যাপারে পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, নির্বিঘ্নে দুই দলেরই কর্মসূচি শেষ হয়েছে। এলাকার পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতেই পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছিল।