রাজ্যপালের অপসারণের দাবি জানাল তৃণমূল

67
ফাইল ছবি।

কলকাতা: রাজ্যপাল জগদীপ ধনকরের অপসারণের দাবি জানাল তৃণমূল। এই দাবিতে দলের তরফে রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দকে চিঠিও দেওয়া হয়েছে। শুক্রবার তৃণমূল ভবনে সাংবাদিক বৈঠকে দলের রাজ্যসভার সাংসদ সুখেন্দুশেখর রায় বলেন, ’রাজ্যপাল যে ধরণের আচরণ করছেন, তা সম্পূর্ণ সংবিধান বিরোধী। সাংবিধানিক রীতি ও নীতি সম্পূর্ণ অবজ্ঞা করে একজন রাজনৈতিক পক্ষপাতদুষ্ট ব্যক্তির মতো তিনি আচরণ করছেন। এজন্য তাঁর অপসারণ দাবি করা হয়েছে।‘

বৃহস্পতিবার কোচবিহারে গিয়েছিলেন রাজ্যপাল। সেখানে স্থানীয় বিজেপি সাংসদ নিশীথ প্রামাণিককে সঙ্গে নিয়ে আক্রান্ত বিজেপি কর্মীদের বাড়িতে যান তিনি। এরপর ফের রাজ্যের বিরুদ্ধে তিনি সুর চড়ান। এমনকি, তৃণমূল কর্মীরা তাঁকে কালো পতাকা দেখানোয় তিনি মেজাজ হারিয়ে দিনহাটা থানার আইসিকে প্রকাশ্যে ধমকও দেন। যা নিয়ে ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে। একজন রাজ্যপাল এই ধরণের আচরণ করতে পারেন কি না, তা নিয়ে বিভিন্ন মহলে চর্চা শুরু হয়েছে। অনেকেই তাঁর আচরণকে রাজনৈতিক নেতার মতো বলে মনে করছেন। সেদিনই তৃণমূলের তরফে রাজ্যপালের ভূমিকার কড়া সমালোচনা করা হয়েছিল। বিজেপি রাজ্যপালের হয়ে সাফাই দিয়ে জানিয়েছে, ধনকর যা করছেন তা তাঁর নিজের কর্তব্যের মধ্যে পড়ে।

- Advertisement -

বিজেপি মুখপাত্র শমীক ভট্টাচার্য বলেন, ‘তৃণমূল চাইছে যেন রাজ্যপাল পদটারই বিলুপ্তি ঘটে, কিন্তু তা তো হতে পারে না কারণ এই পদটা সাংবিধানিক পদ। মুখ্যমন্ত্রী যেভাবে রাজ্য চালাচ্ছেন তাতে গণতন্ত্র শেষ হতে বসেছে।‘ বিজেপির বক্তব্যকে খারিজ করে তৃণমূল জানিয়েছে, রাজ্যপাল বিজেপি কার্যকর্তার মতো কাজ করে চলেছেন। এ রাজ্যে থেকে তাঁর বিদায় নেওয়া প্রয়োজন।

শুক্রবার আরও এক ধাপ এগিয়ে সুখেন্দুশেখর রায় বলেন, ‘রাজ্যপালকে কিছু রীতিনীতি মেনে চলতে হয়। কিন্তু বর্তমান রাজ্যপাল কিছুই মানছেন না। তাঁর আচরণ বাংলার মানুষ ভালো চোখে দেখছেন না। অবিলম্বে এই রাজ্যপালের অপসারণ দাবি করে আমরা রাষ্ট্রপতির কাছে চিঠি দিয়েছি। এই রাজ্যপালের ভূমিকায় রাজ্যের পরিবেশ উত্তপ্ত হয়ে উঠছে।‘ তৃণমূল সূত্রের খবর, রাজ্যপালের ভূমিকা নিয়ে প্রচণ্ড ক্ষুব্ধ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।