একশো দিনের কাজের অভিযোগ ঘিরে তৃণমূলের গোষ্ঠি কোন্দল

307

তুফানগঞ্জ: তৃণমূলের গোষ্ঠি কোন্দলে দফায় দফায় উত্তপ্ত হয়ে উঠল নাককাটিগাছ গ্রাম পঞ্চায়েতের দ্বিপড়পার এলাকা। মূলত ১০০ দিনের মাটি কাটার কাজ নিয়ে দুর্নীতির অভিযোগ ঘিরে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় কোন্দল বাধে। ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে এলাকায়। উত্তেজনার খবর পেয়ে রাতেই তুফানগঞ্জ থানার পুলিশ যায় ঘটনাস্থলে। এলাকায় বসে পুলিশ পিকেটিং। আপাতত পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে বলে তুফানগঞ্জ থানার পুলিশ  জানিয়েছে। এই ঘটনায় দু’পক্ষের বেশ কিছু লোক আহত হন। খড়ের গাদায় ও বাড়িতে আগুন লাগানো হয়।

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, বেশ কিছুদিন থেকেই এলাকায় উত্তেজনা চলছিল। এদিনই তার বহিঃপ্রকাশ ঘটে। নাককাটি গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকাজুড়ে এদিন বাইক মিছিল বের করে তৃণমূল। মিছিল শেষ হয় দ্বিপরপার এলাকায়। এর পরই তৃণমূলের দুই নেতার মধ্যে বাকবিতণ্ডা শুরু হয়। উঠে আসে একশো দিনের কাজে দুর্নীতির কথা। এ নিয়ে উত্তেজনার সৃষ্টি হয় এলাকায়।

- Advertisement -

দ্বিপড়পার এলাকার তৃণমূল নেতা আমানুর হোসেন অভিযোগ করেন, ১০০ দিনের কাজের নাম করে নিজেদের বাড়িতে মাটি ফেলেন স্থানীয় তৃণমূল নেতা পিন্টু হোসেন ও এলাকার সুপারভাইজার। বিষয়টি নিয়ে প্রতিবাদ করতেই  আক্রমণ করা হয়। গাড়িতে ভাংচুর চালানো হয়। গাড়িতে থাকা ১ লক্ষ ৮০ হাজার টাকা ছিনতাই করে নিয়ে যায় পিন্টু হোসেনের লোকজন। আগুন লাগিয়ে দেওয়া হয় খড়ের গাদায়। পুলিশে খবর দিলে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসে।

এ বিষয়ে পিন্টু হোসেন বলেন, ‘আমার বিরুদ্ধে যদি কোনও দুর্নীতির অভিযোগ প্রমানিত হয় তবে রাজনীতি ছেড়ে দেব। অভিযোগকারী বেশ কিছুদিন ধরেই বিজেপির হয়ে কাজ করছিল। নির্দিষ্ট অভিযোগ পাওয়ার পর বিষয়টি জেলা নেতৃত্ব সহ ওপর মহলে জানানো হয়। যে কারনেই এই ভিত্তিহীন অভিযোগ তুলছে সে। অন্যদিকে আমাদের কর্মীদের গাড়ি ভাংচুর করে পুলিশ। আমাদের কর্মী কালাম হোসেনের বাড়িতে আগুন লাগিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করা হয়। এদিন এলাকায় পুলিশ কেনো এসেছিল তা আমার জানা নেই।

নাককাটিগাছ গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান শচীন্দ্রনাথ বর্মন জানান, একশো দিনের মাটি কাটা নিয়ে দুর্নীতির অভিযোগ জমা পড়েছে তুফানগঞ্জ-১ ব্লকে। বিষয়টি নিয়ে লকডাউন শেষে তদন্ত করা হবে। তুফানগঞ্জ থানার তরফে জানা গিয়েছে, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। দেওচড়াই গ্রাম পঞ্চায়েতের চুলকানীর বাজার এলাকায় বিজেপি করার অপরাধে কাজী রাহুল হোসেন নামে এক যুবকের বাড়িতে হামলা করা হয়। অভিযোগের তীর তৃণমূলের বিরুদ্ধে। যদিও অভিযোগ অস্বীকার করেছে তৃণমূল।