পরাজয়ের কারণ নিয়ে পর্যালোচনা বৈঠক তৃণমূলের

158

ফালাকাটা: ফালাকাটায় পরাজয়ের কারণ নিয়ে পর্যালোচনা বৈঠক করল তৃণমূল কংগ্রেস। সোমবার বিকেলে কমিউনিটি হলের পাশে এই বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। এবারের বিধানসভা নির্বাচনে এই কেন্দ্রে পরাজয়ের কারণ নিয়ে বৈঠকে আলোচনা হয়। এক্ষেত্রে দলের নেতাদের একাংশের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন ওঠে। দলবিরোধী কাজে যুক্ত নেতাদের বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ করা হবে বলে জানিয়েছেন তৃণমূলের নেতারা।

আলিপুরদুয়ার জেলার মধ্যে একমাত্র ফালাকাটা কেন্দ্রেই ২০১১ ও ২০১৬ সালে পরপর দু’বার তৃণমূলের বিধায়ক নির্বাচিত হন। কিন্তু বহু প্রচেষ্টা সত্ত্বেও এবার এই নজরকাড়া কেন্দ্রটি তৃণমূলের হাতছাড়া হয়। এই কেন্দ্রে প্রায় চার হাজার ভোটের ব্যবধানে জয়লাভ করে বিজেপি। ভোটের ফলাফলের পর থেকে প্রায় এক মাস ঘরবন্দি ছিলেন তৃণমূলের নেতারা। তবে রাজ্যে তৃতীয়বারের জন্য সংখ্যাগরিষ্ঠ আসন নিয়ে দল ক্ষমতায় আসায় এখন ধীরে ধীরে ফালাকাটাতেও তৃণমূলের কর্মসূচি চলছে। এই পরিস্থিতিতে দলের জেলা সভাপতি মৃদুল গোস্বামীর নির্দেশে এদিন ভোটের ফলাফল নিয়ে ফালাকাটায় পর্যালোচনা বৈঠক করে তৃণমূল। পরাজয়ের কারণ ছাড়াও আগামীদিনে দলের কি কি কর্মসূচি রয়েছে তা নিয়েও আলোচনা হয়। ব্লক কমিটির প্রতিনিধি, প্রতিটি অঞ্চল কমিটির সভাপতি ও শাখা সংগঠনের ব্লক পদাধিকারীরা এদিনের বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন। তবে দলেরই একাংশ নেতা-কর্মী যাঁরা এবার পদে থেকেও সংগঠনের কাজ সেভাবে করেননি, সেইসব নেতাদের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক পদক্ষেপ করা হবে বলে বৈঠকে স্থির হয়েছে। সূত্রের খবর, অঞ্চল স্তরের একাধিক নেতার বিরুদ্ধে দলবিরোধী কার্যকলাপের অভিযোগ উঠেছে।

- Advertisement -

এই প্রসঙ্গে তৃণমূলের ফালাকাটা ব্লক সভাপতি সুভাষ রায় জানান, এদিন প্রতিটি অঞ্চল ধরে ধরে রিপোর্ট সংগ্রহ করা হয়। এতে অঞ্চল স্তরের কিছু নেতার বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছে। তাঁদের বিরুদ্ধে দল পদক্ষেপ করবে। এছাড়া আগামীতে ফালাকাটায় পুরসভা গঠিত হবে। দলেরও নানা কর্মসূচি রয়েছে। আবার এখন বিজেপি থেকে অনেকেই তৃণমূলের যোগ দিতে চাইছেন। এসব বিষয় নিয়েও এদিনের বৈঠকে আলোচনা করা হয়। এই পর্যালোচনা বৈঠকের বিস্তারিত রিপোর্ট জেলা কমিটির কাছে পাঠানো হবে বলে জানিয়েছেন তিনি।