বিভাজনের রাজনীতি করছে তৃণমূল, দাবি রাজু বন্দ্যোপাধ্যায়ের

283

আসানসোল: বুধবার সকালে জেলা বিজেপির তরফে আসানসোলের কোর্টমোড়ে আয়োজিত ‘চায়ে পে চর্চা’য় যোগ দেন বিজেপির রাঢ়বঙ্গের পর্যবেক্ষক তথা রাজ্যের সহ-সভাপতি রাজু বন্দ্যোপাধ্যায়। সেখানে তিনি দাবি করেন, আগামী বিধানসভা নির্বাচনে পশ্চিম বর্ধমান জেলার নটি বিধানসভা আসনই বিজেপি জিতবে। তাও বিপুল ভোটে। তাঁর বক্তব্য, হিন্দু ও মুসলিম বিভাজনের রাজনীতি বিজেপি করে না। বিভাজনের রাজনীতি তৃণমূল কংগ্রেস করছে। সেটা করা হচ্ছে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মদতেই। আর বিজেপি সকলকে নিয়ে চলতে চায়। সেজন্যই দেশের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বলছেন, ‘সবকা সাথ সবকা বিকাশ’।

এদিন রাজু বন্দ্যোপাধ্যায় আরও বলেন, ‘বিজেপি একটা সর্বভারতীয় দল। তাই তো দলের নেতা ও কর্মীরা রাজ্যে আসেন। কিন্তু তাঁদের বহিরাগত তকমা দেওয়া হচ্ছে। কিন্তু তৃণমূল কংগ্রেস অন্য রাজ্য থেকে অবাঙালী প্রশান্ত কিশোরকে ৪০০-৫০০ কোটি টাকা দিয়ে নিয়ে এসেছে। তিনি কি বহিরাগত নন?’

- Advertisement -

‘চায়ে পে চর্চা’ অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন রাজ্য কমিটির সদস্য কৃষ্ণেন্দু মুখোপাধ্যায়, পবন সিং, বিবেকানন্দ ভট্টাচার্য, জেলার সাধারণ সম্পাদক শিবরাম বর্মন, যুব মোর্চার রাজ্য সম্পাদক বাপ্পা চট্টোপাধ্যায়, জেলা সহ-সভাপতি উপাসনা উপাধ্যায় প্রমুখ।

এদিকে, রাজু বন্দ্যোপাধ্যায়কে পাল্টা আক্রমণ করেছেন তৃণমূল কংগ্রেসের জেলা সভাপতি জিতেন্দ্র তেওয়ারি। তিনি বলেন, ‘কারা দেশে বিভাজনের রাজনীতি করছে, তা সবাই জানে। আমাদের কাছে সবাই সমান।’