‘দিদির ডায়ারি’ নিয়ে বিরোধীদের বাড়ি হাজির তৃণমূল

603

ফালাকাটা: আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনে ফালাকাটা আসন ধরে রাখতে মরিয়া তৃণমূল কংগ্রেস। এজন্য সবরকমের কৌশল প্রয়োগ করে এগোচ্ছে শাসক দল। দুর্গাপুজোর আগে দলের ভোট কৌশলী প্রশান্ত কিশোরের নির্দেশে অভিনব কায়দায় ‘দিদির ডায়ারি’ নিয়ে বাড়ি বাড়ি যান তৃণমূলের কর্মীরা।

সূত্রের খবর, গত নির্বাচনগুলিতে বিজেপির কাছে নিজেদের ভোট ব্যাংক ধাক্কা খাওয়ায় প্রথম দফায় তৃণমূল সমর্থক ভোটারদের বাড়ি বাড়ি পৌঁছায় কর্মীরা। রাজ্য সরকারের প্রকল্পের সুবিধাকে কতগুলি পেয়েছে তা নোট করেন তাঁরা। এখন দ্বিতীয় দফায় বিজেপি সমর্থক ভোটারদের বাড়ি যাওয়া শুরু করেছে তৃণমূল। দলের নেতাদের দাবি, রাজনৈতিক রং দেখে নয়, রাজ্য সরকারের একাধিক প্রকল্পের সুবিধা সবাই কমবেশি পেয়েছেন। সেই তথ্য সংগ্রহের মাধ্যমে জনসংযোগ করা হচ্ছে বলে তৃণমূলের নেতারা জানিয়েছেন। যদিও তৃণমূলের এই প্রচেষ্টাকে গুরুত্ব দিতে চায়নি বিজেপি।

- Advertisement -

২০১৬ সাল পর্যন্ত ফালাকাটার আসন নিয়ে কোনও চাপ ছিল না তৃণমূল কংগ্রেসের। কিন্তু ২০১৮’র পঞ্চায়েত ও ২০১৯’র লোকসভা নির্বাচনে ফালাকাটায় বিজেপির কাছে তৃণমূল যথেষ্ট ধাক্কা খায়। তারপর বিধায়ক অনিল অধিকারি সহ একাধিক প্রবীণ ও দক্ষ নেতার মৃত্যুতে তৃণমূলের সাংগঠনিক ছবিটাই অনেক বদলে যায়। নতুন মুখের ভরসাতেই ফালাকাটার আসন ধরে রাখতে চাইছে তৃণমূল। এদিকে এই আসনে বিজেপির তৎপরতাও অনেক বেড়েছে। আগামী বিধানসভা নির্বাচনে যে ফালাকাটায় পরস্পর বিরোধী তৃণমূল ও বিজেপির মধ্যে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হতে চলেছে তা নিশ্চিত। এজন্য ব্যতিক্রমী কৌশল নিতে হচ্ছে তৃণমূলকে। পিকে-এর টিমেরও এই আসনের দিকে বাড়তি নজর রয়েছে।

দলীয় সূত্রের খবর, তৃণমূলের নিজস্ব ভোট ব্যাংক এখনও কতটা মজবুত রয়েছে তা যাচাইয়ের জন্যই পুজোর আগে দিদির ডায়ারি নিয়ে বাড়ি বাড়ি জনসংযোগ শুরু হয়। ওই ডায়ারিতে শিশুসাথী, কন্যাশ্রী, রুপশ্রী, খাদ্যসাথী, সবুজসাথী, কৃষক বন্ধু থেকে শুরু করে বৈতরণী সহ ৪৮ টি প্রকল্পের নাম রয়েছে। দলের ভোট ব্যাংক ধরে রাখতে কোন সমর্থক কতগুলি প্রকল্পের সুবিধা পেয়েছে তা জিঞ্জাসা করার মাধ্যমে তৃণমূল কর্মীরা বুঝিয়ে দিচ্ছেন যে এই রাজ্য সরকারকেই আগামী নির্বাচনে সমর্থন করতে হবে। কিন্তু দলের অভ্যন্তরীণ বিশ্লেষণে উঠে এসেছে, ফালাকাটায় জেতার ক্ষেত্রে বিজেপি প্রভাবিত বা বিজেপি সমর্থকদেরও ভোট পাওয়া প্রয়োজন। কারণ,গত লোকসভায় এখানে তৃণমূলের থেকে ২৭ হাজার ভোট বেশি পায় বিজেপি। এই সূত্রেই দিদির ডায়ারিকে কাজে লাগাচ্ছে তৃণমূল।

ফালাকাটার ২৬৬টি বুথেই দিদির ডায়ারি নিয়ে বুথকর্মীরা বাড়ি বাড়ি যাচ্ছেন। তাঁরা বিজেপি সমর্থকদের বাড়ি গিয়ে যাবতীয় তথ্য নোট করে নিচ্ছেন। দলের ১৩/২২৪ নম্বর বুথ সভাপতি অমল সরকার বলেন, ‘এতগুলি প্রকল্পের মধ্যে একাধিক প্রকল্পের সুবিধা সবাই কমবেশি পেয়েছেন। তাই প্রশ্ন করলে কেউ অস্বীকার করছেন না।’

সূত্রের খবর, তৃণমূল বিজেপি সমর্থক ভোটারদের এক্ষেত্রে প্রভাবিত করতে চাইছে। যদিও নাম প্রকাশ্যে অনিচ্ছুক এক বিজেপি সমর্থক ভোটার বলেন, ‘তৃণমূলের সংস্কৃতি বিজেপিতে নেই৷ তাই অন্য দলের লোকজন আমার বাড়িতে আসতেই পারেন। ওরা যা জানতে চাইছেন, উত্তর দিচ্ছি। আবার পালটা প্রশ্নও করছি।’

এ প্রসঙ্গে তৃণমূলের ব্লক সভাপতি সুভাষ রায় বলেন, ‘কোনও রাজনৈতিক রং দেখে নয়,রাজ্য সরকারের প্রকল্পের সুবিধা সবাই পেয়েছেন। দলের গাইডলাইন মেনেই দিদির ডায়ারির কাজ চলছে।’

তবে বিজেপি এ নিয়ে চিন্তিত নয়। দলের জেলা সাধারণ সম্পাদক দীপক বর্মন বলেন, ‘আমাদের কর্মসূচির অনুকরণ করেছে তৃণমূল। কেন্দ্রেরও একাধিক প্রকল্পের সুবিধা মানুষ পেয়েছেন। তাই তৃণমূলের দ্বারা মানুষ আর প্রভাবিত হবেন না।’
Trinamool is going to the house of BJP supporters with Didi’s diary in Falakata